#MeToo-র ফাঁসে এবার ‘সংস্কারি’ অলোক নাথ, ধর্ষণের অভিযোগ পরিচালকের

0
70

বিনোদন ডেস্ক: #MeToo আন্দোলনে এ বার তির বলিউডের সংস্কারি বাবু হিসেবে পরিচিত অলোক নাথের দিকে। তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন চিত্র পরিচালক তথা লেখক বিনতা নন্দা।

রাহুল বোস অভিনীত ‘হোয়াইট নোজ’ ও জনপ্রিয় টেলিভিশন শো ‘তারা’র পরিচালক তাঁর অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ফেসবুকে লম্বা পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘১৯ বছর ধরে এই সময়টা আসার জন্য অপেক্ষা করছিলাম।’ তাঁর পোস্টের শুরুতে ‘সংস্কারি’, ‘কয়েক দশকের টেলিভিশন স্টার’ এই কথাগুলো বলে বিনতা বুঝিয়ে দিয়েছেন তাঁর আঙুল অলোক নাথের দিকেই।

পরে IANS-তে SMS-এ তিনি স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন, ‘অলোক নাথের কথা বলতে চেয়েছি। আমার মনে হয়েছিল সংস্কারী কথাটাই ওকে চিনিয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।’ বিনতা তাঁর পোস্টে লিখেছেন, ‘তিনি মদ্যপ ও নির্লজ্জ হলেই কয়েক দশকের টেলিভিশন স্টার ছিলেন বলে তাঁর দুর্ব্যবহারকে সবাই ক্ষমা করে দিত। অনেকে আবার তাঁকে আরও খারাপ কাজ করার জন্য ইন্ধনও দিত।’ তাঁর শো-র লিড অভিনেত্রীকেও অলোক নাথ হেনস্থা করেছেন বলে অভিযোগ বিনতার। অলোক নাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে বিনতা লিখেছেন, ‘আমি বাড়ি ফেরার সময় ওই লোকটা আমায় বলে বাড়িতে ড্রপ করে দেবে। বিশ্বাস করে ওর গাড়িতে উঠে পড়েছিলাম। তারপরই আমার চেতনা হারায়। মনে আছে, আমার মুখে প্রচুর মদ ঢেলে দেওয়া হয়েছিল। এরপর চলে অকথ্য অত্যাচার। পরদিন দুপুরে যখন আমার জ্ঞান ফেরে, তখন খুব যন্ত্রণা হচ্ছিল। বিছানা ছেড়ে উঠতে পারছিলাম না। আমায় শুধু ধর্ষণই করা হয়নি। আমার বাড়িতে এনে আমার উপর নৃশংস অত্যাচার করে লোকটা। বেশ কয়েকজন বন্ধুকে ঘটনাটা বলেছিলাম। সবাই আমায় বলেছিল সব ভুলে যেতে। স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে।’

এই ঘটনার পর একটি সিরিজ লেখা ও পরিচালনার কাজ পান বিনতা। সেখানেও ফের তাঁর সঙ্গে অলোক নাথের সামনে পড়তে হয়। বিনতার কথায়, ‘লোকটা ঠিক সেই শো-এ লিড অভিনেতার জায়গা করে নেয়। ও এমন একটা পরিবেশ তৈরি করে যাতে আমি হুমকির মুখে থাকি। তখন প্রযোজককে বলি পরিচালনার দায়িত্ব থেকে আমাকে মুক্তি দিতে। কারণ ওই লোকটার আশপাশে থাকার কোনও ইচ্ছে ছিল না। লেখাটা চালিয়ে যাই।’

এতদিন এই ঘটনা নিয়ে মুখ না-খোলার কারণ হিসেবে বিনতা বলেন, ‘ও আবার আমায় ওর বাড়িতে ডেকেছিল। আমি গিয়েছিলাম। আমার উপর চড়াও হওয়ার অনুমতি দিয়েছিলাম। আমার কাজটা দরকার ছিল। কাজটা হারাতে হোক, সেটা চাইনি। টাকার প্রয়োজন ছিল।’ যাঁরা যাঁরা এই ব্যক্তির দ্বারা হেনস্থার শিকার হয়েছেন, তাঁদের চুপ করে না-থেকে মুখ খোলার আহ্বান জানিয়েছেন বিনতা।

LEAVE A REPLY