বিজনেস ভিসা বাতিল, আর ভারতে যেতে পারবেন না ফেরদৌস!

0
247

দৈনিক আলাপ ওয়েবডেস্ক:‌চিত্রনায়ক ফেরদৌস আহমেদ মঙ্গলবার ভারত থেকে দেশে ফিরে এসেছেন। ভারতের লোকসভা নির্বাচনে একটি দলের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে অংশ নেয়ায় ফেরদৌসের ভিসা বাতিল করেছে ভারত সরকার। এজন্য দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে। এরপরই মঙ্গলবার রাতে বিমানে ঢাকায় ফেরেন তিনি।

বাংলাদেশ থেকে থেকে টলিউডে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গেও পরিচিতি পেয়েছেন তিনি। সেই বাংলাদেশী অভিনেতা ফিরদৌস আহমেদকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দেয় ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফরেনার্স ডিভিশন। মঙ্গলবার উত্তর দিনাজপুরের পুলিশ সুপারের মাধ্যমে তাকে ‘লিভ ইন্ডিয়া মেসেজ’ দেয়া হয়। ‘বিজনেস ভিসা’ নিয়ে এ ভারতে গিয়ে রাজনৈতিক দলের প্রচারে যোগ দেয়ার জন্যই এই সিদ্ধান্ত বলে জানান ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র। ফিরদৌসকে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করা হয়েছে। এ দিনই সন্ধ্যার বিমানে তিনি দেশে ফিরে গিয়েছেন। কালো তালিকাভুক্ত হওয়ার ফলে ভবিষ্যতে ফেরদৌসের পক্ষে ভারতে যাওয়া কঠিন হয়ে পড়তে পারে বলে দেশটির বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, ‘‘ভিসার শর্ত মানেননি ফিরদৌস। বিদেশে এসে রাজনৈতিক দলের প্রচারে যোগ দেয়াও নজিরবিহীন। তাই ভবিষ্যতে তাকে ভিসা দেয়ার ক্ষেত্রে কঠোর মনোভাব দেখানো হবে,’’ বলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র। সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, শুধু ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নয়, কলকাতার বাংলাদেশী উপদূতাবাস থেকেও ফিরদৌসকে দ্রুত ঢাকায় ফিরে যেতে বলা হয়। এ রাজ্যে এসে ভোটের সময় ওই অভিনেতা রাজনৈতিক বিতর্কে জড়িয়ে পড়ায় অস্বস্তিতে পড়েছে ঢাকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানাচ্ছে, ১৪ এপ্রিল ‘বিজনেস ভিসা’ নিয়ে কলকাতায় আসেন ফিরদৌস। ভিসার শর্ত অনুযায়ী তিনি সিনেমার শুটিং, বিনোদনের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারতেন। ২০২২ সাল পর্যন্ত ভিসা ছিল তার।

ফিরদৌস রায়গঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের হয়ে প্রচার করেছেন বলে তৃণমূল সূত্রের খবর। তৃণমূল জানিয়েছে, ১৪ এপ্রিল উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ ব্লকের হেমতাবাদ, বাঙালবাড়ি, নওদা, বিষ্ণুপুর ও চইনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকা এবং রায়গঞ্জ ব্লকের মাড়াইকুড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় রোড শো করে নির্বাচনী প্রচার চালান ফিরদৌস। ১৫ এপ্রিল তিনি করণদিঘি ও ইসলামপুর ব্লকের বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতেও প্রচার করেন তিনি।

LEAVE A REPLY