‌পা নাড়াচ্ছেন চোখ খুলছেন, তবুও শঙ্কমুক্ত নয় কাদের

0
36

 ঢাকা প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সৈয়দ আলী আহসান জানিয়েছেন, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার এখনও তেমন উন্নতি হয়নি। তিনি পা নাড়াতে পারছেন, চোখও খুলছেন। তবে তার শারীরিক অবস্থা এখনও ‘ক্রিটিক্যাল’ ।

রোববার (৩ মার্চ) সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে বিএসএমএমইউয়ে আনুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

রোববার সকালে ওবায়দুল কাদেরকে বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে এনজিওগ্রাম শেষে তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটি ব্লকে রিং পরানো হয়। রিং পরানোর পর তার অবস্থার অবনতি হলে সিসিইউতে রাখা হয় তাকে।

এদিকে, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বিএসএমএমইউতে ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে যান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।হাসপাতালে গুরুতর অসুস্থ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে সিঙ্গাপুর থেকে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছেন তিন সদস্য বিশিষ্ট চিকিৎসক দল।

রোববার সন্ধ্যার পর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় পৌঁছান তারা। চিকিৎসক দলে রয়েছেন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের তিন বিশেষজ্ঞ।

ওবায়দুল কাদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটেই (সিসিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নেমে সরাসরি সেখানেই যান চিকিৎসকরা।

এর আগে, ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড রোববার সন্ধ্যায় জানায়, মাউন্ট এলিজাবেথের এই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে সিদ্ধান্ত নেবেন। তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া সম্ভব না হলে তারা এখানেই চিকিৎসা দেবেন।

আজ রোববার অসুস্থ হয়ে পড়লে এনজিওগ্রাম পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ওবায়দুল কাদেরের তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। একটিতে শতভাগ, একটি ৯৯ ভাগ ও একটিতে ৯০ ভাগ। চিকিৎসকরা তাৎক্ষণিকভাবে একটিতে রিং (স্ট্যান্টিং) পরান। আন্তর্জাতিক নিয়মানুসারে এ অবস্থায় রোগীকে তিনটি রিং কিংবা ওপেন হার্ট সার্জারি করা যায় না। তাই অন্য দুটিতে পরানো সম্ভব হয়নি। বর্তমানে তিনি কার্ডিয়াক আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। তার রক্তচাপ ক্রমশ কমে যাচ্ছে বলেও জানান চিকিৎসকরা।

ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের কার্ডিওলজির অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসান জানিয়েছেন, সেতুমন্ত্রীর তিনটি রক্তনালীতে ব্লক ধরা পড়েছে, যার একটি স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে অপসারণ করা হয়েছে।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, সকালে এনজিওগ্রামের পর ওবায়দুল কাদেরের হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। তার হার্টে রিং পরিয়ে একটি ব্লক সচল করা হয়েছে। পরে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। চিকিৎসকদের অনেকেই বলছেন- আগামী ২৪ ঘণ্টা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

এর আগে রোববার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে হঠাৎ অসুস্থবোধ করলে ওবায়দুল কাদেরকে বিএসএমএমইউর ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) নেয়া হয়। সেখান থেকে জরুরি ভিত্তিতে তাকে সিসিইউতে (করোনারি কেয়ার ইউনিট) নিয়ে ভর্তি করা হয়। পরে এনজিওগ্রাম শেষে ওবায়দুল কাদেরের হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ার কথা জানান চিকিৎসকরা।

LEAVE A REPLY