ওপার বাংলার কবি রুনু ভট্টাচার্য এর নতুন ধারার অসাধারন লেখা “আমার লিখা চিঠি”

261
ওপার বাংলার কবি রুনু ভট্টাচার্য

“আমার লিখা চিঠি”

আমার প্রিয় পারিজাত,

কেমন আছো ? সেবার কাঠমান্ডুতে তোমাকে নিয়ে কিছু দিন খুব আনন্দে কাটিয়েছি, আসার সময় তুমি বলেছিলে চিঠি লিখতে ! তাই আজ লিখতে বসেছি…… তোমার কথা ভীষণ মনে পড়ে, তোমার ও কি মনে পড়ে আমাকে? তোমার সাথে অনেক গল্প তো হয় কিন্তু মন বলে আর ও করি জানি না, কেন ? তোমাকে এত ভালবাসি।অবশ্য তুমিও যে ভালবাসার মতই, তাই তো তুমি স্বৰ্গীয়। তোমার কাছে কিছু প্রশ্ন আছে আমার, অমৃতের সন্ধানে দেবতা ও অসুররা মন্দার পর্বতকে মন্থনদন্ত হিসাবে ব্যবহার করে সমুদ্র থেকে তুলে এনেছিল একের পরে এক আশ্চর্য সব বস্তু ! সেই মন্থনে উদ্ভাসিত হয়ে ছিল লক্ষ্মীদেবী, ঐরাবত হস্তী,উচ্চৈ‍‍শ্রবা অশ্ব, অপ্সরাকুল,কামধেনু, চন্দ্র ইত্যাদি,এবং অব‌‌শ্যই হলাহল বিষ ও অমৃত। এ সব ছাড়াও সেই মন্থনে উঠে এসেছিল এক আশ্চর্য বৃক্ষ, যার নাম পারিজাত। ইন্দ্রের নন্দন কাননের প্রধান গাছটিই হলো পারিজাত,এমন কথা হিন্দু পূরাণে গভীর বিশ্বাসের সঙ্গে উল্লিখিত।স্বর্গের ইন্দ্র মহারাজ আর মর্তের কৃষ্ণ ভগবান নাকি জোর করেই পারিজাত তোমাকে মর্তে আনেন……..সত্যিই কি তাই !! তুমি চিঠি লিখে আমাকে বলো, অনেক ভালো থেকো আমি আবার আসবো,

ইতি
রুনু
Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY