প্রতিভা সন্ধান কাব্য পরিষদ ১৬/১০/২০১৮ তারিখের সেরা লেখা কবি আবদুল হামিদ এর কবিতা ♦জ্বলন্তনিদর্শন ♦//

463

♦জ্বলন্তনিদর্শন ♦//
             আবদুল হামিদ

পবনে পাবক মেলা—জ্বলেছে কর্কশ সুরে মানবতার চিৎকার,
অসভ্যের হস্তে ধ্বনি,অগ্নি শিখা নিয়ে বর্বর চালাচ্ছে নরপিশাচ,
পুড়ছে পথশ্রান্ত মজলুম,কৃষক,পথের টোকাই,
মারছে সাধারণ জনতাকে অশুভ সুচনার চিহ্নরূপে,

ভাঙছে নির্দোষী ফুল কুটির, রক্তাক্ত হচ্ছে জনপথ——।
অক্লিষ্ট হৃদয় উনুনের দাবদাহন——
শকুনের মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে নির্দয় চিত্তে নরপিশাচ,
জ্বলছে পাবকে মানবতা, ফাল্গুনের রিক্ত ঝরা পাতার মতো টগবগে,
ফুল প্রাণেরা জাগবার আগে জ্বলছে পাবক প্রবহ তাপে,
শান্তি নেই কারো,
কারণ,অসভ্যের হস্তে অভিষঙ্গ মানবতা——।
নীরব চুপিসারে লাশের পর লাশ,
আবার লাশের বেদনাহত রক্ত,
কথার সিলিং মেশিন ঝর্ঝর করে বাক্ স্বাধীনতা হনন করেছে নরপিশাচ,
নরপিশাচের নরক নির্ণীত আইনে জ্বলছে মানবতা,
জ্বলছে এই পুরো বিশ্ব।
অসভ্যের ব্যভিচার,বর্জ্র নিনাদে জ্বলছে নৈসর্গিক আলো বায়ু শ্যামল বনভূমি,
হচ্ছে বৃদ্ধ নাবালক আবাল শিশুর মৃত্যু,
গাজা বার্মায় অজ্ঞ বিচরণে ব্যভিচার হামলা,
বোমার কীর্তনে কন্দন বিশ্ব,
কন্দন মানব জয়ধ্বনি প্রয়াসের সমলয় ন্যায়তীর্থ।
পুরো বিশ্বের সব শান্তি ক্লান্তি হয়ে হয়ে জ্বলেছে নরপিশাচের পাবকে,
ক্ষত বিক্ষত জনগণ জনপথ আর মানব সম্প্রদায়,
চোখের সামনে অহরহ খুন আর ঘুম,তবে কেউ
নজরুলের মত বিদ্রোহ
কবিতাগুচ্ছ লিখেনা ভয়ে——–!
পাবকে জ্বলছে পৃথ্বী দাউদাউ,
মৃত্তিকা হতে অম্বে,উত্তর হতে,দক্ষিণে,পূর্ব হতে পশ্চিমে,
ঝর্ণার পায়েও জ্বলছে অগ্নিকুণ্ড,
সব দোযখের ছায়া,জ্বলন্তনিদর্শনের কঠিন পরিক্রমায় দোলছে বাস্তব চত্বর,
অসভ্যের হস্তে ধ্বংসন হচ্ছে বিশ্ব,পুড়ছে বিশ্ব মানবতা———।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY