” আকাশটা সরে যায়” জীবনমুখী কবিতাটি লিখেছেন কবি রওশন রুবী ।

178
কবি রওশন রুবী

আকাশটা সরে যায়

                                      রওশন রুবী

আকাশটা সরে যায় এই ঝিলের উপর থেকে।
কতো মেঘ জমা ছিল জলে,
ওসবও সরে গেছে দিনবদলের সাথে সাথে।
খুঁজে পাই না আজকাল বকের ধ্যানি পদধ্বনি,
মাছরাঙাদের ডানার শব্দ, হেলেঞ্চার সরল হাসি,

শালুকের মেঠো মদির গন্ধ,
বৈঠার তীব্র বেগ; জলের নিক্কন, মাঝির সুর।

এমন হঠাৎ হারিয়ে গেছে চেনা আকাশ! ধমনির টান!
সেখানে শুধুই উঠছে হাহাকার; সেখানে আঁকড়ে আছে
সুতীক্ষ্ম অগনন কাঁটা।
কাঁটারা কতটা কাতর আর আবেগী,
সে শুধু তিনিই জানেন যাকে বেদনায় বাঁধে।
একচিলতে আকাশ না হলে একটা ঝিলের কী করে কাটবে সময়,
এটুকু ভাবছে না কেন কেউ?
বুকের মধ্যে ধরে রাখা ভাঙনের কথা নিরেট বন্ধুর মতো কার কাছে বলবে?
কার কাছে চাইবে মেঘ দাও, জল দাও, আলো দাও? যন্ত্রণা দাও?
দাও তোমার চোখ নিদ্রা লুটি; কত কাল নিশাচরের মতো জেগে আছি।
তোমার একাগ্রতা দাও প্রাণ জাগুক;
প্রাণের মধ্যে ঘুমিয়ে থাকা কথারা কাব্য হয়ে যাক;
আর মানুষেরা দেখুক দুলছে সবুজ, উড়ছে ফড়িং, গাইছে জল।

আমার ভেতরে তোমার ছায়া আর পড়ে না আকাশ
নিয়ে গেছে মানুষেরা সবটুকু আয়ত্বে তার।
চোখগুলো ব্যথা করে দেখি না কতদিন সেই নির্মল বিমুগ্ধ বিশাল।
মানুষের আয়ত্ব করবার ক্ষমতা দিয়েছেন ঈশ্বর?
একদিন তারা সব দখল করে নিলে আমাদের জলেরা তোমার ছায়া হারাবে।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY