তারুণ্যের কবি পম্পি বড়ুয়া এর জীবন ঘনিষ্ঠ জীবনের কবিতা ” ঊনিশ- কুড়ি”

308
তারুণ্যের কবি পম্পি বড়ুয়া

”ঊনিশ- কুড়ি” 

         ————-পম্পি বড়ুয়া 

মেয়ে আমার হয়েছে বুড়ি ,
বয়স তার ঊনিশ- কুড়ি।

কি বলছো মহাশয় হরি,
পড়ে যাবো মাথা ঘুরি।

বাজারে বিক্রি হবেনা মুড়ি ,
কিনে দাও আমায় হাতের চুড়ি।

সমাজের কাছে আমি লজ্জায় মরি !
তোমরা দিও না আমায় গলায় দড়ি।

দিতে পারবেনা বিয়ে তুমি তাড়াতাড়ি করি ,
বিয়ে হবে দেখে শুনে ভালো ছেলে ধরি।

অবুজ মন মানে না বারন কেমন কিযে করি !
নয় ঊনিশ- কুড়ি আগে মেয়েকে শিক্ষিত করি।

বিয়ে দিতে লাগবে অনেক টাকা- কড়ি,
আরো আছে সোনা- দানা ষোলো আনা ভরি।

মেয়ে হলে বাপের চেতনার চিন্তা করি ,
তাই বলে কি মেয়ে তোমার হয়েছে বুড়ি ?

আজ মেয়েরা করছে কাজ জগৎ ঘুরিঘুরি ,
বয়েস পেরিয়ে হয়েছে দেখো অনেক ঊনিশ- কুড়ি।

দিন এসেছে এখন তাই মেয়ে নয় অবলা নারী ,
সমাজকে তুচ্ছ করে এগিয়ে গেছে ভারী।

বসে বসে চিন্তা করে মহাশয় জগন্নাথ হরি ,
যুক্তি দিয়ে কাজ হবেনা চলো পরীক্ষা করি।

কান্না করে মেয়েকে ডেকে কাছে ধরি হরি ,
বিয়ে দিবো তোমায় এবার সমাজের যোগ্য করি।

এই কথাটা সবার জন্য উপযুক্ত মনে করি ,
অল্প বয়সে বিয়ে নয় হোক সে ঊনিশ- কুড়ি।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY