কবি –আদিত্য অনীক এর কবিতা ”কোথাও ছিলে না তুমি”ফাল্গুন দুহিতা রুমকির অনুমতিক্রমে ফাল্গুনের কৃষ্ণ চূড়া গ্রুপ এর সেরা থেকে কবিতা দেয়া হলো ।

642

কোথাও ছিলে না তুমি

                                 আদিত্য অনীক

ফাগুনের রোদে ভেজা থির থির নীল জল
যেন জল-রোদে বোঁনা বুনো হাঁস আঁকা শাড়ীর বেগুনি আঁচল
উধাও দিগন্তে৷ বুড়ো পাহাড়ের দল কুঁয়াশার মখমল
গায়ে ডুবা জলে জানাচ্ছে অস্তিত্বের মূমুর্ষু দখল ৷
জলের আয়নায় ছায়া ফেলা পাহাড়ী শরীর
ভেজা গামছার গেড়োতে দম ফাটা অস্থির
ফাগুন যৌবন, জলের সংগমে৷
স্বর্ণ চাঁপার পাপড়ি নিবিড়ে জমে ,
রেশমী খুমিতে বোনা নিভাজ কিশোরী শরীর
জুড়ে প্রখর দিনের বেহায়া রোদের কাড়াকাড়ি ভীড়৷
ভেজা চুলে এলোমেলো ত্বকের পালকে
পিছলে পড়ে ফিরে আসা আলোর ঝলকে
দিনের জোনাকী গোল মুখ ছবি আঁকে ঝিঁ ঝিঁ ধরা চোখে৷
দেশী পানকৌড়ীর বর্বর বলাৎকারে বিদেশী বুনো হাঁস ,
ধু ধু জলের খোলা প্রান্তরে ডুব-সাতারে মৃত্যুমগ্ন শ্বাস
খসে পড়া পালকে পালকে ঝরে ধুসর অবিশ্বাস
আতিথ্য ছলনায় হত বিশ্বাস ভরা নিঃসঙ্গ পরবাস৷
অথৈ জলের অকুন্ঠ প্রহরায়
নিজঝুম জেগে থাকা টিলার মাথায়
মৃদু সেগুনের ছিপছিপে ছায়ায়
পাহাড়ী পিপাসা জাগা প্যাদা টিং টিং
যুবতী ঘাসের অংগে অংগে নাচে ইচ্ছে ফড়িং৷
ধুসর পাহাড়ী মাটির বুকে প্রেমিকার নাম লেখা
আঁকা বাঁকা পথের শেষে আমি দাড়িয়ে একা৷
বন্ধ চোখের দুপুর অন্ধকারে
ভেসে উঠে বারে বারে
এক খানি গোল মুখ টোল পড়া গাল সুগোল পুর্ণিমা,
খুঁজেছি সর্বত্র। জলে কি পাহাড়ে। তুমি কোথাও ছিলে না ।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY