” স্মরণের জানালায় দাঁড়িয়ে থেকে তুমি আমায় ডেকো ” – ঠিক এমনভাবেই যেন ”স্মরন” সবাইকে ডাকে । এ এমনতর এক কবিতা লিখেছেন রুমকি আনোয়ার !

656
রুমকি আনোয়ার

” স্মরণ”

                   রুমকি আনোয়ার

জীবনের সাঝঘরে তেত্রিশ বছর কেটে গেলো
কাঁসার ঘটে কিছু জল বাকী আছে এখনও ,
খোলা জানালা দিয়ে প্রবেশ করে পুরনো রোদ্দুর
শঙ্খচিলের ডানায় ভর দিয়ে অতীতের আনাগোনা ।
রক্তের ভিতর গড়িয়ে যায় সমুদ্ররের ঢেউ
কতজন ভেসে গেছে অকূলপাথারে ,কতজন ভেবেছে বুঝি পূর্ণিমার ত্রাস ,
চিতাভস্ম দেহ নিয়ে উঠে আসে অচিন্ত্য
ক্ষণিকের তরে জেগে উঠে পুলক স্পন্দন ।
কিরে কল্যাণী চিনেছিস আমারে ?
তোকে চিনবো না বারুদশলা জ্বালিয়ে গেছিস আমারে ।
” তা আছিস কেমন ”
এই আছি নদী যেমন বয়ে যায় ।
” জোয়ার ভাটায় এখন কি শুন্য মরুদ্যান , নাকি পত্রপল্লবে কারা কানন ”
তুই ছাড়া কে ছিল আমার ?
” কেন কষ্ট দিস আমি যে কেবল ফ্রেমবন্দী ছবি ,
তুই এলি না কেন শ্মশান ঘাটে , না এলি সমাধীতে কোন দিন ।
জানিস আমার শিয়রে তোর প্রিয় কৃষ্ণচূড়া
এই রে সময়ের ঘণ্টা বেজেছে গেলাম ”
ক্রমাগত ঘোলাটে হয়ে আসে অপসৃয়মান ছায়া
তেত্রিশ বছরের আমার স্মৃতির অ্যালবাম ।।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY