প্রতিভা সন্ধান কাব্য পরিষদ এর এই সপ্তাহের সেরা গল্প লেখক এনামুল হক টগর লেখা “”প্রিয়তম সন্তান আমি তোমাকে বলছি ”

270
লেখক এনামুল হক টগর

প্রিয়তম সন্তান আমি তোমাকে বলছি

                                                                     এনামুল হক টগর

প্রিয়তম সন্তান আমি তোমকে বলছি
তুমি আমার কথা শোন-
তোমার বয়স এখন নয় বছরের কাছাকাছি
তুমি চতুর্থ শ্রেণিতে লেখা পড়া করছো
তোমাদের পাঠ্য সূচীতে স্বাধীনতার কথা
মুক্তিযোদ্ধাদের কথা জাতির ইতিহাসের কথা
তেমন লেখা নেই, লেখা নেই পূর্বপুরুষদের প্রাচীন সময়ের ইতিহাস।
তুমি আস্তে আস্তে উপরের ক্লাসে উঠতে থাকবে অগ্রজ
আর ধীরে ধীরে সব ইতিহাসই জানতে পারবে নিরব,
জাতির মহানায়কের কথা, অগ্রনায়কদেরর কথা মুক্তিযোদ্ধাদের কথা বধ্যভূমির করুণ বেদনার ব্যথা
বুদ্ধিজীবি হত্যা ও ত্রিশলক্ষ শহীদের জীবন উৎসর্গ
আর বৃটিশদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের বেদনাময় ইতিহাস।
অনহারে উপবাসে জেগে থাকা মানুষের দুঃখ কষ্ট
আমার প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশের গৌরব কথা।
প্রিয়তম সন্তান আমি তোমকে বলছি
তুমি আমার কথা শোন-
এই বাংলার মাটিতে এখনও প্রতিদিন রক্ত ঝরে মৃত্যু
দেশদ্রোহী নগ্ন ঘাতক আর সন্ত্রাসের মিলিত রন্ধুত্বের বিষ
ঘাতকের অত্যাচারে জীবনের আর্তনাদ ধ্বনি শুনি।
পিতার মুখ লজ্জায় অবনত ও কান্ত শরীর আর চোখ
অসহায় আলোহীন জীবনের নির্মম ব্যথায় এখনও
অনাহার ও উপবাসে দিন ও রাত্রি কাটায় কত অসহায়
এখনও সন্ত্রাস আর মাদকের বিষে দেশ প্রেমিকদের আর মুক্তিযোদ্ধাদের লাশের উপর ভাসে আমাদের
প্রিয় জন্মভূমি প্রিয় মাতৃভূমি ও বাংলার স্বাধীনতা!
ক্ষীণ আলোয় নদীর মাঝি ছুটে যায় দূর অন্ধকারে অকুল
গঞ্জের বাজারে মানুষের বুকে এখনও জমে আছে ক্ষুধা
ঘুমহীন এই স্বদেশের পবিত্র মাটির বুক ছুঁয়ে আহত ক্ষত।
প্রিয়তম সন্তান আমি তোমাকে বলছি,
তুমি আমার কথা শোন-
এখনও যন্ত্রণার ভেতর প্রতিধ্বনি হয় যুদ্ধের আওয়াজ
এখনও ধর্মের লেবাসে ঘাতকের অত্যাচারে নির্মম ব্যথা
নিরুপায় হাত কাটা কিশোরের করুণ আর্তনাদ শুনি।
অমূল্য মাতৃত্বের মাটির ব্যথায় দিশেহারা দেশপ্রেম
নগরের বুকে অবুঝ শিশুরা প্রতিদিন ঝরে পড়ে অসহায়
অতন্দ্র রাতের প্রহরে বেদনার আগুন জ্বলে দাউ দাউ
কান্তির আঁধারে নিরত্তাপ প্রিয় জন্মভূমি ও পৃথিবী
বিদায় বিষন্ন যাত্রা করে অনাদি অনন্ত অক্ষয় সাম্যে
সুহাস বক্ষের উপর তাঁর বিদগ্ধ চোখ
আঁকা বাঁকা রাস্তার মতো চলমান নদীগুলো
ভীষণস্রোতে নি:সঙ্গ একা একা ব্যথায়।
প্রিয়তম সন্তান তুমি কি শুনতে পাও
সে কান্নার শব্দ আর যন্ত্রণার ক্ষত বিক্ষত ধ্বনি
তোমার পরস্পরা বংশের রক্তে ছিল প্রতিবাদের আগুন
আরও ছিল দেশ প্রেমিক মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্ব সাহস
তাঁরা জীবনের সত্তায় লুকিয়ে রেখেছিল স্বাধীনতার অঙ্কুর বার্তা ও অনাগত দিনের আলোময় চেতনা।
অকান্ত সূর্যের আলোতে অতন্দ্র বিপ্লবী প্রহরী
দুর-বহুদুর নীল অন্ধকারে সারারাত যুদ্ধ করেছিল
হাজার কৃষকের বুকে স্বপ্ন ছিল নতুন শস্যের আবাদ
জননীর বুকে ছিল স্নেহ মমতা ও প্রত্যাশার নির্মাণ ধ্বনি
প্রিয়তমা পারুলের গ্রামে শেফালী ঝরা প্রভাত জেগে উঠতো,
মাটিতে সৌরভ ছড়াতো বিস্ময় রাত্রির আঁধার ভাঙ্গা আলো।
তাদের অধিকারের আর্তনাদে আজন্ম শ্লোগান ভেসে আসতো,
প্রিয়তম সন্তান তুমি কি শুনতে পাও সেই দেশপ্রেমের প্রতিধ্বনি,
তাদের দাবি ও অধিকারের সংগ্রামী সাম্যময় শ্লোগান।
বিচলিত গ্রাম আর নগরের বুকে আলো জ্বালাতে গিয়ে ন্যায়পরায়ণ
আর মাটিকে ভালোবেসে যুদ্ধে গিয়েছিল কত যুবক ও যুবতী
প্রথম সূর্যের রোদে তাঁরা জ্বলে উঠেছিল সাহসী বিপ্লবী
বীজের অঙ্কুরে নতুন চারাগাছ চেতনা দিয়েছিল সৌরভ।
তারপর জাতি সূর্যের শিখার মতো জ্বলে উঠেছিলাম
রোদ্রের উত্তাপ আন্দোলন সংগ্রাম ও দাউদাউ শিখা
আর মাটির মমতায় সংবদ্ধ হয়েছিল দেশপ্রেমিকরা।
প্রিয় দেশের সবুজ ও লাল পতাকা হাতে জাতিরজনক
ও স্বাধীনতার মহানায়ক আশার ধ্বনি মুক্তির বাণী শোনালো
‘রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরো দেবো
তবুও এই দেশকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ।
জাতির জনকের অবিস্মরণীয় প্রজ্ঞাবান ও মেধায়
যুদ্ধের তলোয়ার শানিত হলো মুক্তির অগ্রজ বার্তা
এবং যুদ্ধ শেষে এক রক্তাক্ত স্বাধীনতা অর্জিত হলো বিজয়।
শক্ররা অন্ধকারে লুকালো আর আমরা জেগে উঠলাম
উজ্জ্বল রৌদ্রের উদ্ভাসিত আলোতে আলোতে দীপ্তময়
প্রিয় জন্মভূমি ও মাটির প্রতি নতজানু হলো দেশপ্রেম।
আর তখনই নিষ্ঠুর ভাবে হত্যা করা হলো
স্বাধীনতার ভাষণ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী ও স্বাধীনতার মহানাযক বাংলার রাখাল রাজা
আর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে তারপর রক্তাক্ত হলো বিষাদময় নতুন ও নির্মম বেদনার ইতিহাস!
তাঁর পরস্পরা বংশধরদেরকে হত্যা করলো ঘাতকেরা
ধীরে ধীরে হত্যা করালো
স্বাধীনতার অগ্রনায়কদের
প্রজ্বলিত সূর্যের আলো নিভে গেল
ঘাতক শক্ররা আবার জেগে উঠলো
অভিশপ্ত রাত্রির বিষাদ তরঙ্গের মতো ক্ষত বিক্ষত
আজন্ম অবক্ষয় নগরের রাজপথে নিষ্ঠুর রক্তপাত
চতুর্দিক ক্ষুধা শস্যহীন মাটির বক্ষ বেদনার কান্না
নিস্ফল বৃক্ষরাজি অনাহারী পশু ও পাখি
আদিগন্ত বাংলার প্রিয়তম পিতা প্রিয়তম মাতা
ইতিহাসের মাটিতে শহীদ রূপে ঘুমিয়ে পড়লো বিষাদ।
প্রিয়তম সন্তান আমি তোমকে বলছি
তুমি আমার কথা শোন-
পরিসমাপ্ত যুদ্ধে কথা এখনও শেষ হয়নি
অনিবার্য সৌন্দর্যের সুকণ্ঠ ধ্বনি ও গভীর বেদনার কথা
আর গর্ভবতী বোনের ধর্ষিত লাশ তুমি সেদিন দেখনি
ভাসমান পিতার লাশের পাশে শমিরনের মৃত দেহ
বিভৎস সেদিনের সেই করুণ বিচিত্র রূপ তুমি তখন দেখনি।
মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন এখনও নতুন বাজার থেকে ফেরেনি
নিহত টিংকুর খবর এখনো কেউ জানেনা
মালেকা বানু এখনও বেঁচে আছে নিজেকে বিধবা ভাবে না
তাঁর প্রিয় সন্তান এখন বাবাকে খোঁজে কি যে যন্ত্রণা
এখনও আঁধার রাতে শিশুরা কাঁদে স্বজন ফিরে আাসার বেদনায়।
আহত নদীর বুকে ক্ষত চিহ্ন বিধ্বস্ত বেদনারস্রোত
আজও পানির বুকে ঢেউ তোলে মৃত লাশের গন্ধ
কত বেওয়ারীশ লাশ মাটিতে পঁচে গিয়েছিল সেদিন
নিষ্ঠুর ঘাতকের বারুদের বিষে জ্বলেছিল কত গ্রাম ও নগর।
প্রিয়তম সন্তান তুমি শুনছো আমি তোমাকে বলছি ?
বাংলার মাটিতে বৃটিশ বিরোধী বীর দেশপ্রেমীক
তিতুমীরের বুক থেকে প্রথম রক্ত ঝরেছিল
রক্ত ঝরেছিল সিরাজুদ্দৌলা, মোহনলাল রায়ের বুক থেকে বেদনা
মৃত্যুর জন্য ফাঁসির মঞ্চে উঠেছিল মাস্টার দা সূর্য সেন।
আরও আরও অনেক দেশপ্রেমিক
মহান মাতৃভাষার জন্য রক্ত দিয়েছিল রফিক শফিক জব্বারসহ হাজারও দেশপ্রেমিক বীর সংগ্রামী
অধিকারের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছিল নূর হোসেন
জেহাদ ডাঃ মিলন শাজাহান সিরাজ রাউফন বসুনিয়া আরো অনেক অনেক দেশপ্রেমিক ন্যায়পরায়ণ বন্ধুরা।
হলুদ ঝরা পাতার বুকে মৃত দেহগুলো কেঁদেছিল
আঁধার পথের পেছনে পেছনে দুর্বিনীত বিশ্বাস ঘাতক আঘাতে রক্তাক্ত করেছে প্রিয় স্বদেশ ও প্রিয় মৃত্তিকা
কত বিনিদ্র রাত কত যন্ত্রণার দিন কত যুবক ও যুবতী।
আকাশ জুড়ে কালো কালো ও খন্ড খন্ড অশনি মেঘ
শব্দহীন মৃত্যুর মতো নীরবে ক্ষয়ে যাওয়া ব্যথিত সময়
উত্তাপহীন অসুখে জড়ানো জীবন
দেহের ভেতর স্বজনহারা কান্না।
তবুও দীপ্ত দিনের আলোর খোঁজে যুদ্ধ করেছিল
আর শত আঁধার ভেঙে দিয়েছিল সংগ্রামী বীর সাহসী যোদ্ধারা।
তারপরও বিশ্বাসঘাতকরা আমাদের প্রেম ও ভালোবাসায় বিষ ঢেলে দিতে চায় যন্ত্রণার
আর ছিড়ে ফেলতে চায় জাতির সম্মান শিকড়!
প্রতিকুল অবিশ্বাসী বৃক্ষের ছায়ার নীচেই জেগে আছে সেই ঘৃণিত দানব।
আমাদের এই বসবাস ও দেশ প্রেমের বিদগ্ধ কর্ম
বিষফলে বিষাক্ত করে দিতে চায় বিকৃত ইতিহাস।
ওরা বুঝে না দেশপ্রেম মাটির দুঃখ ও বেদনা
তাই গ্লানির স্পর্শে জেগে ওঠে চাঁদের করুণ ব্যথা
পৃথিবীর রাত জানে বিশাল অনিদ্রার কি শোক।
দৃর্যোগ অন্ধকার ভাঙা আমাদের এক একটা প্রতিজ্ঞা
কঠির তিমিরে যাত্রাছিল আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম
তাকে জাগিয়ে বিজয়ের ধ্বনিময় সুর উঠেছিল আলো
তাই প্রিয়তম মুখগুলো এখনও হৃদয়ে আঁকি
দু:খের রঙ দিয়ে ভালবাসার ঘর বাঁধি
মাটির রঙে স্বদেশের ছবি আঁকি
অনেক স্বপ্ন দিয়ে কষ্ট দিয়ে নতুন নির্মাণ করি
তোমাদের ও অনাগত বংশধরদের সুন্দর অগ্রজ
প্রিয়তম সন্তান আমি তোমকে বলছি
তুমি আমার কথা শোন-
হৃদয়ের গভীর মর্মমুলে ছবি আঁকো
তোমার নিবিড় বিশ্বাস ভালোবাসার ঠিকানায়।
নির্জন হৃদয়ের একটি ছোট ঘরে মধুর প্রেম
তা দিয়ে বাঁশি বাজাও ও মর্যাদার ধ্বনি তোল
চেতনার লাল মুখে জ্বলে উঠুক স্বদেশের রং
জীবনের শ্রমগুলো শস্য বীজের খোলস ভেঙে অঙ্কুরিত হোক নতুন
মাটির দেহে জেগে উঠুক সবুজ ও সজিব চারাগাছ
আদর্শ ও মর্যাদায় ধীরে ধীরে নিজস্ব গতিতে তাঁরা
বেরে উঠুক মহিরূহ আর সফলতার আলো ছড়াক বাস্তবতার পথে পথে নিপুণ দক্ষ।
মৃত্যুর অগ্নিবিষ হোমানোল শিখায়
অশুভ বৃক্ষকে পেছনে ফেলে দুর্বার
জীবনের আদর্শ যাত্রায় চলমান ধ্বনি তুলুক আবার
প্রিয়তম সন্তান তুমি হেঁটে চলো হেঁটে যাও
মানুষের চোখে সহজ সরল নিদ্রারেণু জাগিয়ে
আর অপেক্ষার আলো জ্বালাও মাধুরী প্রেমে সৌরভ
পূর্বাভাস জন্মের শেকড়ে বেড়ে উঠুক নতুন চেতনা
তোমার বংশের বেদনা ক্ষত চিহ্ন মুছে যাক
তবেই শেষ হবে যন্ত্রণার দিন
আর ফসলে ভরে উঠবে সোনালী সবুজ মাঠ।
সু-ষমবন্টন ও সাম্য প্রেমে জেগে উঠুক জাতি
সবুজ সতেজ এক সূর্যময় সুন্দর আগামীর জন্য
অনর্গল জ্ঞান ছড়াও আলোর জ্যোতি
দীর্ঘ আঁধার রজনী মুছে যাক।
আলোর প্রভাতে একদিন আমাদের দু:খরা কেটে যাবে ক্ষুধামুক্ত
প্রিয়তম সন্তান তুমি পাবে স্নেহদুগ্ধ নতুন সকালের কিরণ।
চাষাবাদের উপযোগী ফসলের মাঠ ও মৃত্তিকার ভালোবাসা।
প্রিয়তম অমিত সন্তান আমার
তুমি হেঁটে যাও হেঁটে যাও আরও দুর পথে হেঁটে যাও
এক সুস্থ ফুলের বুকে বাংলাদেশকে জাগিয়ে তোল
আঁধার কেটে যাক স্বচ্ছ আলো ফিরে পাক নতুন গৌরব সম্মান।
চন্দ্রের আলোতে রূপালী আকাশ জ্যোৎস্নার প্রেম
মৌসুমী নদীর শিমুল ফোটা তীরে মুক্তিযোদ্ধারা দাঁড়িয়ে চেতনায়।
আলোর স্মৃতি চিহ্ন নতুন বকুলের গন্ধে তোমরা তাদের কাছে গিয়ে দাঁড়াবে নতুন।
আর স্নেহময় হাতে বিনীত পুস্প মমতার সৌরভ ছড়াবে মহৎ
সত্যের উদগত নতুন অংকুরে জেগে উঠবে বাংলাদেশ
এক প্রত্যয় প্রদীপ্ত জীবন যাত্রার আলোয় আলোয়
অতীত সমকাল ও ভবিষ্যত এক মহাচৈতন্যে স্বচ্ছ
মাটির ললাট স্পর্শ করে মহাকালের সাথে নতুন
হেঁটে যাবে তোমাদের সাথে অনাগত।
প্রিয়তম সন্তান আমি তোমকে বলছি
তুমি আমার কথা শোন-

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY