আশির দশকের ছাত্রনেতা নীরুর নেতৃত্বে নতুন সংগঠনের আত্মপ্রকাশ

423

  ঢাকা  প্রতিনিধি:   আশির দশকের ছাত্রনেতা সানাউল হক নীরুর নেতৃত্বে নতুন সংগঠন ‘মুভমেন্ট ফর জাস্টিস’ আত্মপ্রকাশ করেছে।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে নতুন এই সংগঠনের যাত্রা শুরুর কথা জানানো হয়। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, নতুন এই সংগঠনের লক্ষ্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা।

তবে গুঞ্জন রয়েছে সংগঠনটি নতুন জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিতে পারে। অচিরেই নীরু বিএনপিতে যোগ দিচ্ছেন— এমন আলোচনার মধ্যে তার নেতৃত্বে আত্মপ্রকাশ করল এ সংগঠন। তিনি এ সংগঠনের প্রধান সমন্বয়কের দায়িত্বে রয়েছেন।

‘মুভমেন্ট ফর জাস্টিসে’র আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানের ব্যানার ও দাওয়াতপত্রে প্রধান অতিথি হিসেবে ড. কামাল হোসেনের নাম থাকলেও এতে অনুপস্থিত ছিলেন তিনি। সানাউল হক নীরুর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ্‌ চৌধুরী, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য আ ব ম মোস্তবা আমীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল, ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি এনামুল করিম শহীদ ও জিয়াউর রহমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী মশিউর রহমান যাদু মিয়ার নাতি রিটা রহমান।

বক্তারা আওয়ামী লীগ ও বিএনপি, দুই দলেরই সমালোচনা করেন। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নষ্ট করার জন্য দায়ী করেন বিএনপিকে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তারা বলেন, সরকার গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো অকার্যকর হয়ে পড়েছে।

অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগের মুখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলা হলেও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে জাদুঘরে পাঠিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার এখন নেই। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নষ্ট করার জন্য বিএনপিকে দায়ী করে তিনি বলেন, সংসদ বহাল ও প্রধানমন্ত্রীকে স্বপদে রেখে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিলের রায় দেওয়ায় সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা হওয়া উচিত।

‘ভোটাধিকার ফেরাতে’ বিরোধী সব শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ্‌ বলেন, সব দলকে নিয়েই ঐক্য করতে হবে। গণতন্ত্রের পদযাত্রায় ছোঁয়াচে রোগে আক্রান্ত হলে হবে না। তিনি প্রশ্ন করেন, খারাপ লোকের কি ভালো হওয়ার অধিকার নেই? খারাপ লোক ভালো হলে তাকে বাদ দেওয়া উচিত?

সেনাপ্রধান সম্পর্কে ভুল বক্তব্যের কারণে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় অভিযুক্ত ডা. জাফরুল্লাহ্‌ বলেন, ‘শব্দচয়নে ভুল করেছি। ভুল স্বীকারও করেছি। তাই বলে কি রাষ্ট্রদ্রোহ করেছি?’

ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন সম্পর্কে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা যেসব সমালোচনা করছেন, সেসবের জবাবে আসিফ নজরুল বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে ব্যাংকে লুটপাট হয়েছে। হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে। অথচ তারাই বলছে ড. কামাল দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে জোট করেছেন। যারা ঐক্যের বিরোধিতা করছেন, তারা ভোট চোর অথবা ভোট চোরের সহযোগী।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY