আর্থিক খাতে অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থার দাবি সংসদে

30

দৈনিক আলাপ ওয়েবডেস্কঃব্যাংক এবং ই-কমার্স খাতে অনিয়মকারীদের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা। আজ (শনিবার) সংসদ অধিবেশনে অর্থ মন্ত্রণালয়ের একটি বিলের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে এই দাবি জানান তারা। এসময় বিদেশে টাকা পাচারকারীদের তালিকা প্রকাশের দাবি জানান। জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, অনিয়ম করে কেউ পার পাবে না।

শনিবার স্পিকার ডক্টর শিরিন শারমিনের সভাপতিত্বে শুরু হয় সংসদ অধিবেশন। দিনের কার্যসূচীতে থাকা অন্যান্য বিষয় স্থগিত করে আইন প্রনয়ণ কার্যবলী শুরু করেন স্পিকার। শুরুতে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংকিং বহি সাক্ষ্য বিল-২০২১ উত্থাপন হলে এর ওপর আলোচনায় অংশ নেন সংসদ সদস্যরা।

জাতীয় পার্টি এবং বিএনপির কয়েকজন সদস্য বিলের বিভিন্ন ধারায় সংশোধনীর প্রস্তাবনা তুলে ধরেন। তারা বলেন, ব্যাংকে জামানত রাখা অর্থের সুদের হার কমিয়ে মধ্যবিত্তদের জীবনকে আরো কঠিন করে তোলা হয়েছে। ব্যাংক বীমাসহ আর্থিক খাতে দুর্নীতি এবং অনিয়মের কারণে চরম অস্থিরতা বিরাজ করছে। এসময় অর্থমন্ত্রীর কাছে অর্থ পাচারকারীদের তালিকা প্রকাশেরও দাবি জানান তারা।

জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো। ই-কমার্স এবং আর্থিক খাতে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

পরে সংশোধিত আকারে ব্যাংকার বহি সাক্ষ্য বিল-২০২১ সংসদে পাস হয়। ডিজিটাল লেনদেনের নথি ও দলিল ‘সাক্ষ্য বই’ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে উপনিবেশিক আমলের আইন বাতিল করে এই বিল পাস হয়েছে। ১৮৯১ সালের এ সংক্রান্ত আইন বাতিল করে নতুন আইন করতে বিলটি আনা হয়েছে। ব্যাংকের লেজার বুক, ক্যাশ বুক এগুলোকে সাক্ষ্য বই বলা হয়।

এর আগে বিলের ওপর দেওয়া জনমত যাচাই-বাছাই কমিটিতে পাঠান এবং সংশোধনী প্রস্তাবগুলোর নিষ্পত্তি করেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। গত ১৪ই জুন বিলটি সংসদে তোলার পর পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দিতে অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।

বিলে ডিজিটাল পদ্ধতিতে যেসব রেকর্ড হবে সেগুলোও ‘সাক্ষ্য বই’ হিসেবে আইনে বিবেচিত হবে। ব্যাংকগুলোর লেজার বুক, ক্যাশ বুক, লোন ডেসপাস বুক যা আছে- সবই এর অন্তর্ভুক্ত হবে।

বিলে বলা হয়েছে, আইনে বর্ণিত কারণ ছাড়া কোনো ব্যাংক কর্মকর্তা বা কর্মচারী কোনো গ্রাহকের তথ্য প্রকাশ করলে তার সর্বোচ্চ তিন বছরের জেল ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা হবে। এ আইনের অধীন অপরাধ অ-আমলযোগ্য, জামিনযোগ্য ও আদালতের সম্মতিতে আপসযোগ্য হবে বলে বিধান রাখা হয়েছে। অন্যদিকে, মহাসড়ক বিল-২০২১ সংসদে পাসের প্রকৃয়া চলছে।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY