পটুয়াখালীতে মারধরের পর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করলো স্বামী

52
পটুয়াখালীতে মারধরের পর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করলো স্বামী

পটুয়াখালী প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় যৌতুক না দেয়ায় নির্যাতন চালিয়ে অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূর মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে ঘরে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে।

ওই গৃহবধূর নাম প্রিয়াঙ্কা রানী (২০)। তার স্বামীর নাম স্বামী তাপস চন্দ্র মণ্ডল।

মঙ্গলবার দুপুরের দিকে উপজেলার কালাইয়া লঞ্চঘাট এলাকায় তাপস মণ্ডলের বাড়িতে ঘটে এ ঘটনা।

জানা গেছে, কয়েক বছর পূর্বে আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের হাজিরহাট এলাকার সুশিল চন্দ্র কর্মকারের মেয়ে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে বিয়ে হয় কালাইয়া ইউনিয়নের লঞ্চঘাট এলাকার বাসিন্দা প্রিয়লাল মণ্ডলের পুত্র তাপস চন্দ্র মণ্ডলের। বিয়ের সময় ৩ ভরি স্বর্ণ ও নগদ টাকা যৌতুক হিসেবে নেয় তাপস মণ্ডল ও তার পরিবার।

প্রিয়াঙ্কা জানান, তার স্বামী নিয়মিত নেশা করেন। মঙ্গলবার সকালে প্রিয়াঙ্কার কাছে আরও ৫০ হাজার টাকা চায় তাপস। কিন্তু সেই টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন তিনি। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে কয়েক দফা তাকে মারধর করে স্থানীয় সেলুন থেকে নাপিত ডেকে প্রিয়াঙ্কার চুল কেটে ন্যাড়া করে ঘরে আটকে রাখে।

বুধবার সন্ধ্যায় প্রিয়াঙ্কা কৌশলে তার মা-বাবাকে খরব দিয়ে বাউফল পৌর শহরের জেলা পরিষদ ডাকবাংলোর সামনে এসে উপস্থিত সাধারণ মানুষের কাছে তার ওপর নির্যাতনের কথা বর্ণনা করেন।

এ বিষয়ে প্রিয়াঙ্কা সাহার বাবা সুশিল চন্দ্র কর্মকার জানান, তার জামাতা তাপস তার মেয়েকে নির্যাতন করে চুল কেটে দিয়েছে। আমি থানায় এ বিষয়ে অভিযোগ করব।

এ বিষয়ে স্বামী তাপস চন্দ্র মণ্ডল জানায়, তার স্ত্রীর মাথায় উকুনের কারণে ঘাঁ হয়ে গেছে। বেশ কয়েকদিন থেকেই তার স্ত্রী উকুনের উপদ্রব থেকে পরিত্রাণের জন্য তার মাথা ন্যাড়া করার কথা বলছিল। এখন নিজের ইচ্ছায় মাথা ন্যাড়া করে কেন এ ধরনের কথা বলেছে তা আমার বোধগম্য নয়।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, প্রিয়াঙ্কা বাদী হয়ে একটি যৌতুক মামলা দায়ের করেছেন। এতে অভিযুক্ত স্বামী তাপসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY