হেনস্তাকারীদের সঙ্গে কাজ করবেন না ১১ নারী নির্মাতা

351
ছবি : সংগৃহীত

দৈনিক আলাপ ওয়েবডেস্ক:‌ বলিউডের জয়া আখতার, গৌরী শিন্ধে, কিরণ রাওসহ বেশ কয়েকজন নারী চলচ্চিত্র নির্মাতা যৌথভাবে ঘোষণা দিয়েছেন, যৌন হেনস্তাকারীদের সঙ্গে কাজ করবেন না তাঁরা। নিপীড়নের শিকার নারীদের সহায়তায় এগিয়ে আসারও আহ্বান জানিয়েছেন তাঁরা।

বলিউডের ১১ জন জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও নির্মাতা যৌথ স্বাক্ষরিত একটি বিবৃতিপত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, ‘প্রমাণিত নিপীড়নকারীর’ সঙ্গে তাঁরা কখনোই কাজ করবেন না।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন অলংকৃতা শ্রীবাস্তব, গৌরী শিন্ধে, কিরণ রাও, কঙ্কনা সেন শর্মা, মেঘনা গুলজার, নন্দিতা দাস, নিতিয়া মেহরা, রীমা কাগতি, রুচি নারাইন, সোনালি বোস ও জয়া আখতার।

ওই বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, ‘নারী ও চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে আমরা মি টু ইন্ডিয়া আন্দোলনকে সমর্থন জানাচ্ছি। যেসব নারী তাঁদের নির্যাতন ও নিগ্রহ সম্পর্কে সৎ বক্তব্য নিয়ে এগিয়ে এসেছেন, তাঁদের প্রতি আমরা সম্পূর্ণ সংহতি জানাচ্ছি। কাঙ্ক্ষিত বদলের পথে বিপ্লব আনার জন্য তাঁদের যে সাহস, আমরা তাকে সম্মান জানাই।’

‘কর্মক্ষেত্রে সমতা ও নিরাপত্তার পরিবেশ তৈরির ব্যাপারে সচেতনতা তৈরির জন্য আমরা একজোট হয়েছি। প্রমাণিত দোষীদের সঙ্গে কাজ না করার ব্যাপারে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। চলচ্চিত্রশিল্পের সঙ্গে জড়িত আমাদের সমস্ত বন্ধু ও সহযোগীর কাছেও আমরা এ ব্যাপারে অনুরোধ জানাচ্ছি।’

পরিচালক সুভাষ কাপুরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ওঠার পর কিরণ রাও ও তাঁর স্বামী আমির খান সম্প্রতি গুলশান কুমারের জীবনীভিত্তিক ছবি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেন। এই যুগল এর আগে বলেছিলেন, সমর্থন দিয়ে হ্যাশট্যাগ মি টু আন্দোলনকে তাঁরা বেগবান করবেন।

গত মাসে অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত অভিযোগ করেন, ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি আইটেম গানের শুটিং চলাকালে তাঁকে যৌন হেনস্তা করেন বর্ষীয়ান অভিনেতা নানা পাটেকার। পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, ২০০৫ সালে ‘চকলেট’ ছবির শুটিং চলাকালে বিবেক তাঁকে বলেছিলেন, ‘কাপড় খুলে নাচো’।

দুই বছর আগে হলিউডে যখন হ্যাশট্যাগ মি টু আন্দোলন চলছিল, তখন নীরব ছিল বলিউড। তনুশ্রী দত্তর অভিযোগের পরই নড়েচড়ে বসে বি-টাউন। এর পর বেশ কয়েকজন নারী হেনস্তার অভিযোগ আনেন, তাঁদের মধ্যে বিকাশ বেহল, অলোক নাথ, রজত কাপুর, সাজিদ খান, অমিতাভ বচ্চন, সালমান খানও রয়েছেন।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY