সালমান চিরদিন বেঁচে থাকবে সবার অন্তরে। আজ অমর নায়ক সালমান শাহের মৃত্যুবার্ষিকী।

84

বিনোদন ডেস্ক: বাংলা চলচ্চিত্রের অমর নায়ক সালমান শাহ। আজ (৬ সেপ্টেম্বর) তাঁর ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী। প্রিয় নায়কের স্মরণে দেশজুড়ে সালমানের পরিবার ও ভক্তরা নানা আয়োজন হাতে নিয়েছেন। দোয়া, মিলাদ ও মানববন্ধন কর্মসূচি এসবের অন্তর্ভুক্ত। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে নিহত হন সালমান শাহ। অভিযোগ উঠে যে, তাকে হত্যা করা হয়েছে। সেই মামলার সুরাহা আজ পর্যন্ত হয়নি।

সালমান শাহকে বলা হতো ঢাকাই ছবির সাফল্যের বরপুত্র। তিনি ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দ্বী নায়ক। তার জনপ্রিয়তার রেকর্ড আজ পর্যন্ত কেউ ভাঙতে পারেননি। রহমান, নাদিম, রাজ্জাক, সোহেল রানা, ফারুক, উজ্জ্বল, জাফর ইকবাল, ইলিয়াস কাঞ্চন প্রমুখ জনপ্রিয় নায়কের যুগের পর ঢালিউডের আকাশে ধূমকেতুর মতো আবির্ভাব ঘটে সালমান শাহের।

মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি ছিলেন আন প্যারালাল, মৃত্যুর পরেও হয়ে আছেন অপ্রতিদ্বন্দ্বী নায়ক। সালমানের অভিনয় স্টাইল, পর্দায় তার সপ্রতিভ উপস্থিতি আর নায়কোচিত ইমেজ আজও অন্য তারকাদের কাছে অনুকরণীয় হয়ে আছে। ১৯৯৩ সালে সোহানুর রহমান সোহানের পরিচালনায় ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে রুপালি পর্দায় তার অভিষেক। শুরুতেই বিশাল সাফল্য দিয়ে সালমান প্রাণসঞ্চার করে দিলেন মৃতপ্রায় চলচ্চিত্রে। তারপর শুধুই ইতিহাস। সালমান শাহ মানে দর্শকের ভালোবাসা আর চলচ্চিত্রের জন্য আশীর্বাদ। ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৬। শুধুই সাফল্যের পথে হেঁটে যাওয়া। চলচ্চিত্রের আকাশে ধূমকেতুর মতো এখনো জ্বল জ্বল করে জ্বলছেন চির অমর সালমান শাহ। মৃত্যুর মাত্র কদিন আগে মৃত্যু নিয়ে সালমান শাহ বলেছিলেন, ‘এখনই এ ধরনের পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত নই, কাম্যও নয়। শুধু আমার নয়, কারও ভাগ্যে যেন বিধাতা অকাল মৃত্যু না লিখেন।’ বেঁচে থাকার জন্য যার আকুতি ছিল এমন, তিনি কী করে আত্ম অভিমানে নিজেকে সংহার করবেন। এমন প্রশ্নের উত্তর আজও মেলেনি। সালমান ছিলেন অভিনয়ে, আছেন হৃদয়ে, থাকবেন অনন্তকাল। সবাই জানেন সালমানের মৃত্যু নেই। আজ তার প্রস্থানের ২২তম বার্ষিকী।

বর্তমান সময়ে ঢাকাই সিনেমায় যে আকাল দেখা দিয়েছে তাতে করে এই শিল্পের ভবিষ্যত নিয়ে দুঃশ্চিন্তা করাটাই স্বাভাবিক। যে কারণে সময়ে সময়ে সালমান শাহ নামের ধূমকেতু আমাদের সামনে চলে আসবে। ২২তম মৃত্যু বার্ষিকীতে সালমানকে নিয়ে যতটা আলোচনা বা স্মৃতি মন্থন চলছে আশা করি দুর ভবিষ্যতে সালমানকে নিয়ে ঢেড় বেশি আলোচনা হবে। কারণ, অবস্থা যা দেখা দিয়েছে তাতে করে বাংলা চলচ্চিত্রের অতীত নিয়ে মেতে থাকা ছাড়া বর্তমানের কোন সুযোগ থাকবে বলে মনে হয় না। সুতরাং সালমান আছেন এবং থাকবেন তার ভক্তের ভালবাসায় হৃদয়ের উষ্ণ অনুভুতিতে – ।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY