করোনাভাইরাস: দেশে দেশে বিপর্যয়ের সর্বশেষ

86

দৈনিক আলাপ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১১হাজার ছাড়িয়ে গেছে, এবং এই সংখ্যা ঘণ্টায় ঘণ্টায় বাড়ছে । বিপর্যস্ত জনপদের তালিকার শীর্ষে এখনও ইটালি, স্পেন ও ইরান।

ইউরোপ

ইটালিতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়েছে গেছে। শুক্রবার সেদেশে রেকর্ড ৬২৭ জন মারা গেছে।

এ নিয়ে ইটালিতে মৃতের সংখ্যা ৪,০৩২। আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭০২১ জন।

ইটালির পাশের দেশে স্পেনে মৃতের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সেখানে মৃতের সংখ্যা ১৩২৬। রাজধানী মাদ্রিদের হাসপাতালগুলো নতুন নতুন রোগীর ভিড়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

পর্তুগালে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যা ৬ থেকে দ্বিগুণ হয়ে ১২ হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ২৬০ জন।

ব্রিটেনে এখন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪১৪৫। মৃত ১৭৮।

আজ (শনিবার) থেকে দেশজুড়ে রেস্তোরা, বার, জিম, সিনেমা হল, থিয়েটার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

মানুষকে পাগলের মতো জিনিসপত্র কেনা বন্ধ করতে আবাো আবেদন করেছে সরকার।

সুইজারল্যান্ডে একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ শতাংশ বেড়ে ৬হাজার ছাড়িয়ে গেছে। মৃতের সংখ্যা ৫৬।

 

নতুন নতুন রোগীর ভারে বিপর্যস্ত ইটালির হাসপাতালগুলো
প্রতিদিন নতুন নতুন রোগীর ভারে বিপর্যস্ত ইটালির হাসপাতালগুলো

এশিয়া

ইরানে প্রতি দশ মিনিটে একজন করে মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সেদেশে ১২৩ জন মারা গেছে। ফলে মৃতের সংখ্যা প্রায় ১৬০০। আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ২১হাজার।

সিঙ্গাপুর করোনাভাইরাস মোকবেলায় প্রশংসা কুড়ালেও শনিবার তারা দুজনের মারা যাওয়ার কথা জানিয়েছে। এটাই সেদেশে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা।

চীনে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কেউ আক্রান্ত হয়নি কিন্তু শুক্রবারও ৪১ জন সেদেশে আক্রান্ত হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়া গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন একশ জন রোগীর কথা জানিয়েছে।

প্রায় জনশূন্য নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ার। লোকজনকে ঘরের মধ্যে থাকার নির্দেশ
প্রায় জনশূন্য নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ার। লোকজনকে ঘরের মধ্যে থাকার নির্দেশ

আমেরিকা

যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে যাওয়ার পর নতুন নতুন রাজ্য এবং শহরে মানুষকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রতি পাঁচজন আমেরিকানের একজনকে – অর্থাৎ ৭ কোটি মানুষকে – এখন কার্যত গৃহবন্দী হয়ে থাকতে হবে।

নিউইয়র্ক সিটিতে আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ৬২০০

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY