কেন ভারতের জমি চিনকে ছেড়ে দিচ্ছেন মোদী, ৮ প্রশ্নে কেন্দ্রকে বিঁধলেন রাহুল গাঁধী

38
নরেন্দ্র মোদী (বাঁদিকে), (ডানদিকে) রাহুল গাঁধী ছবি: পিটিআই

দৈনিক আলাপ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতের জমি চিনের হাতে তুলে দিচ্ছে মোদী সরকার, শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে এমনই অভিযোগ করলেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গাঁধী। তাঁর তোপ যে সরাসরি কেন্দ্র তথা নরেন্দ্র মোদীর দিকেই, তা আরও একবার শুক্রবার স্পষ্ট করেন রাহুল। তাঁর প্রশ্ন, ‘‘এতদিন ফিঙ্গার ৪-এ ভারতীয় সেনা থাকত। কিন্তু রাজনাথ সিংহ বলেছেন, এ বার ভারতীয় সেনা সরে এসে ফিঙ্গার ৩-এ ঘাঁটি তৈরি করবে। কেন চিনকে ভারতীয় ভূখণ্ড এ ভাবে ছেড়ে দিচ্ছে মোদী সরকার?’’

প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ বৃহস্পতিবার সংসদে বলেন, ভারত ও চিন সেনা সরানোর বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছেছে। কিন্তু কংগ্রেস মনে করছে, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের নামে ভারতের জাতীয় নিরাপত্তাকে প্রশ্নের মুখে ফেলছে কেন্দ্র। আর সেই নিয়েই তোপ দেগেছেন কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা থেকে রাহুল গাঁধী সকলেই। এ দিকে সেনা সূত্রে খবর, প্যাংগং হ্রদ এলাকা থেকে সেনা সরানোর পর এ বার ভারতের নজরে রয়েছে দেপসাং এলাকা। চিনের সঙ্গে পরবর্তী পর্যায়ের আলোচনায় দেপসাং থেকেও সেনা সরানোর বিষয়টি তুলতে পারে ভারত।

সংসদে রাজনাথ সিংহের ভাষণের প্রেক্ষিতে কংগ্রেসের তরফ থেকে একাধিক প্রশ্ন তোলা হয়েছে। এই সূত্রেই ৮ প্রশ্নের একটি তালিকা কেন্দ্রের দিকে ছুড়ে দিয়েছেন কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা। প্রথমেই তাঁর প্রশ্ন, ‘‘সীমান্তে এপ্রিল ২০২০-এর আগের স্থিতাবস্থা ফিরবে কি না, তা স্পষ্ট করেননি রাজনাথ সিংহ। কেন কেন্দ্রীয় সরকার লাদাখ সীমান্তে আংশিক সেনা প্রত্যাহারের দাবি মেনে নিচ্ছেন? কেন তাঁরা চিনের সামনে সম্পূর্ণ সেনা প্রত্যাহারের দাবি করছেন না?’’

রাহুল গাঁধী যে কথা বলেছেন, সেই মর্মেই ভারতীয় ভূখণ্ডের অধিকার চিনের হাতে তুলে দেওয়ার অভিযোগ করেছেন সুরজেওয়ালাও। তিনি বলেছেন, ‘‘প্যাংগং হ্রদ এলাকায় ফিঙ্গার ৪-এ ছিল ভারতীয় সেনা। ফিঙ্গার ৮ পর্যন্ত টহল দিতে পারত। রাজনাথ সিংহ বলেছেন, এ বার ভারত সেনা পিছিয়ে আসবে ফিঙ্গার ৩-এ। কেন পূর্ববর্তী অবস্থানকে বাফার জোন করা হল? ভারতীয় ভূখণ্ড কেন তুলে দেওয়া হল চিনের হাতে?’’

এমনই বিস্তারিত ৮ প্রশ্নে কেন্দ্রকে যখন বিঁধছে কংগ্রেস, তখনই সেনা সূত্রে খবর, প্যাংগং হ্রদের সীমানা থেকে সেনা সরানোয় ঐকমত্যে পৌঁছনোর পর এ বার ভারত চাইছে দেপসাং এলাকা নিয়ে কথা তুলতে। রাজনাথ সিংহ জানিয়েছিলেন, এরপরেও দু’দেশের মধ্যে কমান্ডার স্তরের কথা চলবে। সেই বৈঠকেই এই বিষয়টি উঠতে পারে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী স্পষ্ট করে এলাকার ঘোষণা না করলেও মনে করা হচ্ছে, চিন ভারতের আলোচনায় উঠে আসতে পারে দেমচক সেক্টর, চারডিং নিঙ্গলাং নালাহ-সহ বেশ কয়েকটি এলাকার কথা।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY