৭ মিনিটেই শেষ রাজ্যপালের ভাষণ, বিজেপি-র বিক্ষোভে ছাড়লেন বিধানসভা

66
রাজ্যপালকে স্বাগত জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়।

দৈনিক আলাপ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নির্বাচনে বড় জয়ের পরে বিধানসভায় প্রথম অধিবেশন শুরু হচ্ছে শুক্রবার। বাজেট অধিবেশনের প্রথম দিনে নিয়ম মতো ভাষণ দেবেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। কিন্তু সেই নিয়মের ভাষণে তিনি চিরাচরিত রীতি মানবেন কি? এমন প্রশ্ন নিয়েই শুরু হচ্ছে অধিবেশন। নিয়ম বলছে, রাজ্য মন্ত্রিসভা তথা শাসক দলের ঠিক করে দেওয়া ভাষণই পাঠ করেন রাজ্যপাল। তবে অতীতেও তার ব্যতিক্রম দেখা গিয়েছে। এ বারেও কি তেমন কোনও নজির তৈরি করবেন ধনখড়? রাজ্যের লিখে দেওয়া ভাষণ যে তাঁর মনঃপূত হয়নি তা আগেই জানিয়েছেন ধনখড়। এ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তিনি কথাও বলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী বুঝিয়ে দেন, মন্ত্রিসভার অনুমোদিত ভাষণই যে হেতু পাঠানো হয়েছে তাই পরে আর কিছু বদল করা যাবে না। রাজভবনের সঙ্গে নবান্নের সঙ্ঘাত নতুন কিছু নয়। ধনখড় রাজ্যপাল হয়ে আসার পরে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বারবার বিবাদ তৈরি হয়েছে নানা বিষয়ে। বিধানসভা নির্বাচনের পরে তা নতুন চেহারা নিয়েছে। সেই আবহের মধ্যে বৃহস্পতিবার রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু বৈঠকও করেন ধনখড়ের সঙ্গে। এর পরে শুক্রবার রাজ্যপালের ভাষণ নিয়ে কী হবে তা নিয়ে জল্পনার মধ্যেই শুরু হচ্ছে বাজেট অধিবেশন .
সাত মিনিটে ভাষণ শেষ
সাত মিনিটে ভাষণ শেষ করে বিধানসভা ছেড়ে বেরিয়ে গেলেন রাজ্যপাল।
হইচই হতে পারে, খবর ছিল
ভোট পরবর্তী সন্ত্রাস এবং আইন শৃংখলা অবনতি নিয়ে রাজ্যপাল বললে বিজেপি বিধায়করা হইচই করতে পারেন। দলের পরিষদীয় বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে গেরুয়া শিবির সূত্রে খবর ছিল।
থমকে গেল ভাষণ
থমকে যায় রাজ্যপালের ভাষণ। স্পিকার ও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে ফের শুরু হয় ভাষণ। কিন্তু তাও বেশিক্ষণ চলেনি। সংক্ষিপ্ত ভাষণ দিয়ে বেরিয়ে যান রাজ্যপাল।
বিজেপির বিক্ষোভ
রাজ্যপাল ভাষণ শুরু করতেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিজেপি বিধায়করা। ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসের পোস্টার নিয়ে আসন ছেড়ে ওয়েলে নেমে আসেন।
আগেই পৌঁছে যান শুভেন্দু এবং বিরোধীরা
আগেই বিধানসভায় পৌঁছন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। সঙ্গে বিজেপি বিধায়করাও।
পাশাপাশি মমতা-ধনখড়
সেই সময়ে মুখ্যমন্ত্রী আর রাজ্যপাল ছিলেন একেবারে পাশাপাশি। দু’জনকে কথা বলতেও দেখা যায়।
আম্বেদকরের মূর্তিতে মালা দিলেন রাজ্যপাল, মুখ্যমন্ত্রী এবং বিধানসভার অধ্যক্ষ
তিন জনে একসঙ্গে বিধানসভা ভবন চত্বরে বাবা সাহেব আম্বেদকরের মূর্তিতে মাল্যদান করেন।
স্বাগত জানালেন মমতা এবং বিমান
রাজ্যপাল বিধানসভায় আসেন ঠিক ১টা ৫০ মিনিট নাগাদ। স্বাগত জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY