যুক্তরাষ্ট্র-সিডিসির গবেষণা ,পূর্ণ ডোজ টিকায় করোনায় মৃত্যুঝুঁকি কমে ১১ গুণ

130
করোনার টিকা ফাইল ছবি: রয়টার্স

দৈনিক আলাপ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পূর্ণ ডোজ টিকা নিলে করোনায় মৃত্যুর ঝুঁকি ১১ গুণ কমে যায় বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার্স ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)। একই সঙ্গে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর হাসপাতালে ভর্তির ঝুঁকি ১০ গুণ কমে যায়। গত শুক্রবার সিডিসির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়। খবর এএফপির।

 শুক্রবার করোনা টিকার কার্যকারিতা নিয়ে তিনটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করে সিডিসি। এসব গবেষণায় টিকার কার্যকারিতা নিয়ে ইতিবাচক ফল পাওয়া গেছে। সিডিসির পরিচালক রোশেল ভলেনস্কি এ নিয়ে সেদিন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘একের পর এক গবেষণার করে দেখা গেছে, করোনার টিকা কাজ করছে।’বিজ্ঞাপন

সিডিসির তিনটি গবেষণার প্রথমটিতে চলতি বছরের ৪ এপ্রিল থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ১৩টি অঞ্চলের করোনা রোগীদের ওপর জরিপ চালানো হয়। ওই সময়ে করোনা ডেলটা ধরন অতটাও ভয়াবহ আকার ধারণ করেনি। পরে ২০ জুন থেকে ১৭ জুলাই পর্যন্ত আরেকটি জরিপ চালানো হয়। দুই জরিপ থেকে পাওয়া তথ্যের তুলনা করে দেখা যায়, আগের তুলনায় টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার হার বেড়েছে।

সিডিসির গবেষণা অনুযায়ী, টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের আক্রান্ত হওয়ার হার আগের তুলনায় বাড়লেও তাদের হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর হার কমেছে। তবে টিকা নেওয়া কম বয়সীদের তুলনায় বয়স্কদের মধ্যে ভর্তি ও মৃত্যুর হার তুলনামূলক বেশি। এমন পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এবং সিডিসি দেশটিতে করোনার বুস্টার ডোজ দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা বিষয়টি পর্যালোচনা করছে।
সিডিসির আরেকটি গবেষণা চালানো হয় বিভিন্ন ধরনের করোনা টিকার কার্যকারিতা নিয়ে। চলতি বছরে জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ৪০০টির বেশি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চালানো ওই গবেষণায় দেখা যায়, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর মডার্নার টিকা নেওয়া ৯৫ শতাংশ রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি। ফাইজারের টিকার ক্ষেত্রে এই পরিমাণ ৮০ শতাংশ। জনসনের টিকার ক্ষেত্রে হাসপাতালে ভর্তির পরিমাণটা আবার বেশি। দেখা গেছে, জনসনের টিকা নেওয়া ৬০ শতাংশ রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here