এখনো ভীত এবং শঙ্কিত তালেবান নেতার সাক্ষাৎকার নেওয়া সেই নারী

39
বেহেস্তা আখন্দ। ছবি: রয়টার্স

দৈনিক আলাপ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গত মাসে তালেবানরা কাবুল দখল করার দিন দুয়েক পর গোষ্ঠীটির এক নেতার সাক্ষাৎকার নিয়ে বিশ্ব গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছিলেন বেহেস্তা আখন্দ। তিনি আফগানিস্তানের শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজের উপস্থাপক ছিলেন। এর কিছুদিন পরই দেশ ছেড়ে আলবেনিয়ায় পাড়ি জমান। বর্তমানে তিনি আলবেনিয়ায় অবস্থান করছেন।

সম্প্রতি সেখানেই তার একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছে বিবিসি। জানিয়েছেন তালেবান নেতার সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় তার মানসিক ও শারীরিক অবস্থা কেমন ছিল, বর্তমানে কেমন আছেন এবং ভবিষ্যতে আফগানিস্তানে ফিরতে চান কি-না। সাক্ষাৎকারের এক পর্যায়ে চোখ দিয়ে পানি ঝড়তে দেখা যায় ওই নারী উপস্থাপককে।

No description available.

বেহেস্তা আখন্দ বলেন, ‘তালেবান নেতার সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় আমার হাত কাপছিল। আমি সত্যিই ভয়ে ছিলাম। কারণ, সেদিনই আমি প্রথমবার কোনো তালেবানকে সামনাসামনি দেখেছি। এখনো আমি ভীত এবং শঙ্কিত।’

একজন নারী সাংবাদিক হিসেবে বেহেস্তা আখন্দ তার নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত ছিল। এ জন্যই পরবর্তীতে আফগানিস্তান থেকে পালিয়ে গেছেন এবং আলবেনিয়ায় আশ্রয় নেন। আলবেনিয়ার বিচ রিসোর্টে আশ্রয় নেওয়া আরও ৭০০ আফগান শরণার্থীর মধ্যে তিনিও একজন।

No description available.

আমি কখনো সমুদ্র দেখিনি। আলবেনিয়া খুবই সুন্দর দেশ। আমরা একটি সুন্দর জায়গায় রয়েছি। কিন্তু, যদি আলবেনিয়া কিংবা পুরো বিশ্ব স্বর্গে পরিণত হয়, তবুও সেটি আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়। আমার আত্মা, মন সবই আফগানিস্তানে, যোগ করেন তিনি।

তালেবানের উদ্দেশে এই নারী উপস্থাপক বলেন, ‘আপনারা পুরো দেশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন। কিন্তু, একদিন আপনি জানবেন, একটি জেনারেশনকে হারিয়েছেন। যারা ডায়মন্ডের মতো মুল্যবান ও উজ্জল ছিল। আপনারা একটি শক্তিশালী জেনারেশনকে হারিয়েছেন।’

No description available.

তিনি আরও বলেন, ‘আমি দেশ ছাড়ার কথা কখনোই চিন্তা করিনি। আমি সবকিছু হারিয়েছি, ছোটবেলা থেকে আজ অবধি যা কিছু অর্জন করেছি। আমি আমার স্বপ্ন পূরণের জন্য স্ট্রাগল করেছি। কিন্তু এখন সবকিছুই শূন্য।

আমি আমার চাকুরী (উপস্থাপনা) মিস করি। আমি সত্যিই আমার কাজকে ভালোবাসি। কেবল আশা করি, একদিন আমি আফগানিস্তানে ফিরে যাবো।’

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY