মণিপুর-মায়ানমার সীমান্তে জঙ্গিহানা, স্ত্রী, পুত্র-সহ নিহত অসম রাইফেলসের কর্নেল

18
প্রতীকী ছবি।

দৈনিক আলাপ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মণিপুরের হামলার শিকার অসম রাইফেলস। শনিবার সকালে মায়ানমার সীমান্তবর্তী চূড়াচাঁদপুর জেলায় জঙ্গিহানায় অসম রাইফেলসের এক কমান্ডিং অফিসার-সহ ছ’জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ওই অফিসারের স্ত্রী এবং সন্তান রয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রের খবর। নিহতদের মধ্যে রয়েছেন ওই অফিসারের গাড়ির চালক এবং অসম রাইফেলসের দুই কর্মী।

পুলিশ সূত্রের খবর, নিহত কর্নেল বিপ্লব ত্রিপাঠী অসম রাইফেলসের ৪৬ নম্বর ব্যাটেলিয়নের কমান্ডিং অফিসার ছিলেন। বেহিয়াং থানার অন্তর্গত সিংঘাটের কাছে সায়লসি এবং সেকেন গ্রামের মধ্যবর্তী জঙ্গল ঘেরা এলাকায় তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালায় জঙ্গিরা। কনভয়ের অন্য গাড়ি থেকে জওয়ানেরা পাল্টা গুলি চালালে জঙ্গিরা গা ঢাকা দেয়।

জঙ্গিদের গুলিতে কয়েক জন জওয়ান জখম হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে অন্তত দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনার পরেই মায়ানমার সীমান্তবর্তী মণিপুরের ওই এলাকায় অভিযানে নেমেছে সেনা এবং অসম রাইফেলস।

মণিপুরে জঙ্গি হানায় অসম রাইফেলসের কর্নেল ত্রিপাঠী এবং তাঁর পরিবারের সদস্যেদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘মণিপুরে ৪৬ অসম রাইফেলসের কনভয়ে জঙ্গিদের জঘন্য হামলার তীব্র নিন্দা করছি।’

সূত্রের খবর, মণিপুরের জঙ্গিগোষ্ঠী ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি অফ মণিপুর’ (পিএলএএম)। হামলার পিছনে মায়ানমারে ঘাঁটি গেড়ে থাকা নাগা জঙ্গিগোষ্ঠী এনএসসিএন (খাপলাং) গোষ্ঠীরও হাত থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। গত বছরর মণিপুরের চান্দেল জেলায় অসম রাইফেলসের কনভয়ে হামলা চালিয়েছিল এই নাগা জঙ্গিগোষ্ঠী। ওই হামলায় তিন জওয়ান নিহত হয়েছিলেন।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY