প্রাণঘাতী করোনা, উচ্চ ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

634
এইচআইভির-ওষুধে-করোনা-ভাইরাসের-চিকিৎসা
ছবি: সংগৃহীত।

বিশেষ প্রতিনিধি: বিশ্বের বিভিন্ন দেশে একের পর এক ছড়িয়ে পড়ছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। বাংলাদেশও রয়েছে উচ্চ ঝুঁকিতে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ৭৮টি দেশে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। পুরো বিশ্বে এই ভাইরাসে ৯৩ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

শুধু চীনেই এই ভাইরাসে ২ হাজার ৯শ’ ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে চীনের দাবি, এখন করোনায় তাদের দেশে আক্রান্ত ও মৃতের হার কম। এদিকে চীনে বাইরে ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরানে এই ভাইরাস ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা ২৫টি দেশের নাম উল্লেখ করেছে, সেখানে রয়েছে বাংলাদেশের নাম। এ অবস্থায় বাংলাদেশে প্রতিদিনই পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করছে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। বুধবার সংস্থাটি জানায়, যাত্রী যাতায়াতের দিক থেকে এখন উচ্চ ঝুঁকিতে বাংলাদেশ। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় জাতীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে তিন স্তরে কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান আইইডিসিআরের পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত না থাকার সনদ ছাড়া চার দেশ থেকে কেউ বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন না জানিয়ে ডা. ফ্লোরা বলেন, করোনা সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও কুয়েতের যাত্রীদের অন অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। সুতরাং কেউ বাংলাদেশে আসতে চাইলে আগেভাবে নিয়মমাফিক ভিসার আবেদন করতে হবে। ভিসা নেয়ার সময় তারা যে করোনাভাইরাস সংক্রমণ মুক্ত- এমন সনদ দাখিল করতে হবে। যাত্রী যাতায়াতের দিক থেকে বাংলাদেশ এখন উচ্চঝুঁকিতে থাকায় এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ইতিমধ্যে বিশ্বে ৭৮টি দেশে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। উদ্বেগের মাত্রা প্রতিদিনই বাড়ছে। ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান ও জাপানকে হটস্পট হিসেবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে, এমন দেশ থেকে আপাতত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাংলাদেশে আসা এবং বাংলাদেশ থেকে না যাওয়ার আহ্বান জানান ডা. ফ্লোরা।

জানা গেছে, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটির সভাপতি স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক। সারাদেশে জেলা ও উপজেলা কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক। আর সদস্যসচিব সিভিল সার্জন। উপজেলা কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সদস্যসচিব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানরা উপজেলা কমিটির উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করবেন।

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে— একটি সমন্বয় কমিটি, অন্যটি টেকনিক্যাল কমিটি। সিনিয়র বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকদের নিয়েও একটি সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া সারাদেশে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা-উপজেলা পর্যায়ে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের কীভাবে চিকিত্সা ও ব্যবস্থাপনা দেওয়া হবে, সেসব বিষয়ে করণীয় বিষয় সম্পর্কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি সরকারি হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিট প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

তবে আরো প্রস্তুতি প্রয়োজন বলে বিশেষজ্ঞরা অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, ঢাকা শহরের অভিজাত এলাকা ও বিভাগীয় শহরে বড়ো বড়ো শপিং মল, বিপণিবিতান, বড়ো আবাসিক হোটেলে করোনা ভাইরাস নিয়ে নিরাপত্তা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। তবে সব জায়গায় সতর্কতার কোনো বিকল্প নেই।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে নানান গুজব আর আতঙ্কের মধ্যে নতুন শঙ্কার কথা জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলছে, নোংরা টাকার নোট থেকেও ছড়াতে পারে করোনা ভাইরাস। সংস্থার পক্ষ থেকে মানুষকে বিকল্প নোট ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। যুক্তরাজ্যের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ‘ব্যাংক অব ইংল্যান্ড’ স্বীকার করেছে, কাগজের নোটগুলো ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস বহন করতে পারে। এছাড়া করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে দিনে অন্তত দুইবার স্মার্টফোনের স্ক্রিন পরিষ্কারের অনুরোধ করা হয়েছে। ব্যাংকের ডেভিড বা ক্রেডিট কার্ডও পরিষ্কার রাখার অনুরোধ জানিয়েছে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড।

ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার বলা হয়েছে, বাংলাদেশসহ মোট ২৫ দেশ কোভিড-১৯-এর উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। যে ২৫টি দেশ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বা উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে, তাদের জন্য ৩ কোটি ৭০ লাখ ডলারের জরুরি তহবিল দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি বলেছেন, করোনা ভাইরাস বর্তমানে বিশ্বের ৭০টিরও বেশি দেশে প্রবেশ করেছে। আমাদের দেশেও এই ভাইরাসটি চলে আসতে পারে। যদি ভাইরাসটি চলেও আসে তার জন্য স্বাস্থ্যখাতের সব ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে। দেশের সব বন্দরে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ডাক্তার-নার্সদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রস্তুত রাখা, সার্বক্ষণিক হটলাইন খোলা রাখার ব্যাবস্থার পাশাপাশি দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা এবং আন্তঃমন্ত্রণালয়ভিত্তিক তিনটি শক্তিশালী কমিটি গঠন করে দেয়া হয়েছে।

বুধবার বিকালে রাজধানীর মহাখালীর নিপসমের পুনঃসজ্জিত অডিটোরিয়াম ও নবনির্মিত ব্যায়ামাগারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কয়েকটি দেশে বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার প্রেক্ষাপটে ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও কুয়েত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের বিষয়ে কিছু বিধিনিষেধ জারি করেছে সরকার। এই চার দেশ থেকে যাত্রীদের বাংলাদেশে প্রবেশ করতে হলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন এমন সনদ লাগবে। অন্যথায় তাদের কেউ বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবে না।

 

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here