ঢাকায় অনুষ্ঠিত হলো ব্লু ইকোনমি বিষয়ক দুইদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সিম্পোজিয়াম

229

দৈনিক আলাপ ওয়েবডেস্ক:‌ সিমেক ইনস্টিটিউটের আন্তর্জাতিক গবেষণা কেন্দ্রে অস্ট্রেলিয়া এওয়ার্ডসের অর্থায়নে “Applied Learning Activities” শীর্ষক দুইদিনব্যপী সিম্পোজিয়াম (৬-৭ মার্চ, ২০২৩) অনুষ্ঠীত হয়েছে। সিম্পোজিয়ামের মূল শিরোনাম ছিল, “Developing the Blue Economy through Sustainable Marine Resource Management (Bangladesh)”

সিম্পোজিয়ামে প্রধান অতিথি হিসেবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব রিয়ার এডমিরাল (অবঃ)মোঃ খোরশেদ আলম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর রিয়ার এডমিরাল(অবঃ) মোঃ খালেদ ইকবাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ভিত্তিক অস্ট্রেলিয়ান হাই কমিশনের ফার্ষ্ট সেক্রেটারি ড. সাচ্চা ব্লুমেন এবং পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য বিভাগের প্রোগ্রাম ম্যানেজার ইমাম নাহিল, অস্ট্রেলিয়া এওয়ার্ডসের বাংলাদেশ কান্ট্রি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ড. তাহমিনা রশিদ। দুইদিনব্যাপী এই সিম্পোজিয়ামের সভাপতিত্ব করেন সাবেক অতিরিক্ত সচিব এবং আন্তর্জাতিক গবেষণা কেন্দ্রের ব্লু ইকোনমি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মোয়াজ্জেম হোসেন। সেমিনারটির সার্বিক সমন্বয়কারি এসডিজি বিষয়ক পরামর্শক মুহাম্মাদ শরিফুর রহমান জানান, “সিমেক ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারে গত পাঁচ বছর ধরে এসডিজি একশান রিসার্চ সহ আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানসমূহে বিভিন্ন গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব সানশাইন কোষ্ট ও কার্টিন বিশ্ববিদ্যালয় এর সাথে আমাদের ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারের কয়েকটি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে বাংলাদেশ থেকে সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, গবেষক ও একাডেমীয়াদের অস্ট্রেলিয়ায় শিক্ষা, গবেষণা ও শর্ট কোর্সে অংশগ্রহণ করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে”।

সিম্পোজিয়ামের প্রথমদিন অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব সানশাইন কোষ্ট থেকে গতবছর ব্লু ইকোনমি বিষয়ক শর্টকোর্স সম্পন্নকারীদের সনদপত্র ও সম্মাননা প্রদান করা হয়। অনষ্ঠিানের দ্বিতীয় দিন অংশগ্রহনকারীদের মোট ৫ টি দল ব্লু ইকোনমি বিষয়ে তাদের কর্মক্ষেত্রে নিজস্ব উদ্যোগ, বাস্তবায়ন এবং সম্ভাবনাসমূহ উপস্থাপন করেন। এসময় প্রশ্নোত্তর পর্বসহ বিভিন্ন আলোচনা এবং প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে অতিথিরা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে নানা মূল্যবান পরামর্শ প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে জুমে উপস্থিত ছিলেন সিমেক ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার এর চিফ কো-অর্ডিনেটর ড. রতন কুমার রায়। এছাড়াও ইউনিভার্সিটি অব সানশাইন কোস্ট থেকে যুক্ত ছিলেন প্রফেসর ড. রিচার্ড বাউডেন, ড. জুবাইদা পারভীন পাটওয়ারি, টামি হ্যারিয়ট এবং নাশতারান হাদিদি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব মোঃ খুরশেদ আলম ব্লু ইকোনমিকে বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অগ্রাধিকার দিতে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠান, মন্ত্রনালয় এবং দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গকে সচেষ্ট হতে বলেন। তিনি মনে করেন, সামুদ্রিক সম্পদ রক্ষার্থে সচেতনতা ও দক্ষতা বৃদ্ধির বিকল্প নেই তাই প্রথমে সম্ভাবনাগুলো খুঁজে বের করে সক্ষমতা কাজে লাগাতে হবে।

সিম্পোজিয়ামের দ্বিতীয় দিন অংশগ্রগনকারী ও আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে আয়োজন করা হয় নেটওয়ার্কিং ডিনার। চমকপ্রদ এই বুফেট আয়োজনে সম্মানিত অতিথিগন নিজেদের মত বিনিময় করেন। এতে সম্মানিত অতিথি ছিলেন আইডিয়া ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব ও এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মোঃ আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, ‘ব্লু ইকোনমিসহ নানা গবেষনা বিষয়ে সিমেক এখন আমাদের পার্টনার’।’ সিমেক গ্রুপের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সরদার মোঃ শাহিন এর আকষ্মিক উপস্থিতি গোটা আয়োজনে প্রাণ সঞ্চারিত করেছে। আলোচনার শেষ পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘ব্লু ইকোনমিকে বাস্তবায়ন করতে হলে আমাদের নিজেদের এগিয়ে আসতে হবে এবং প্রকৃতির প্রতি সহানুভূতিশীল হতে হবে। কারণ প্রকৃতি কখনও আমাদের নিরাশ করেনা, বরং হাজার গুণ ফিরিয়ে দেয়। তাই আমাদের প্রকৃতিকে লালন করতে হবে।’

সমাপনী বক্তব্যে ইঞ্জিনিয়ার সরদার মোঃ শাহিন ইউনিভার্সিটি অব সানশাইন কোস্ট, অস্ট্রেলিয়া এওয়ার্ডস, প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি, আলোচক ও অতিথিবৃন্দসহ সিমেকের আয়োজক সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here