অস্ট্রেলিয়া এওয়ার্ডস্ ফেলোশিপ মনোনীত মুহাম্মাদ শরিফুর রহমান বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যাত্রা .

126

দৈনিক আলাপ ওয়েবডেস্কঃ বাংলাদেশের সমুদ্র অর্থনীতিতে গবেষণা ও নীতিমালা প্রণয়নে অবদান রাখার সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়া সরকারের অস্ট্রেলিয়া এওয়ার্ড ফেলোশিপে মনোনীত হলেন এসডিজি মডেল ভিলেজ বাংলাদেশ (SDG Model Village Bangladesh)-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজকর্মী ও গবেষক মুহাম্মাদ শরিফুর রহমান। এ উদ্দেশ্যে ২রা ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রি: তিনি বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যাত্রা করেন সেখানে ইউনিভার্সিটি অফ সানশাইন কোস্ট, ইনস্টিটিউট ফর মেরিন এন্ড এন্টারকট্রিক স্টাডিজ, টারুনা ইউনিভার্সিটি অফ তাসমানিয়া, মারিয়া আইল্যান্ড ন্যাশনাল পার্ক, সী ওয়ার্ল্ড ফাউন্ডেশন, টেঙ্গালুমা মেরিন এডুকেশন এন্ড কনজারভেশন প্রোগ্রাম, গ্রিফ্ফিথ ইউনিভার্সিটি, গোল্ড কোস্ট, ব্রিবি আইল্যান্ডসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সেমিনার, ওয়ার্কশপ, দর্শনীয় স্থান, ইনস্টিটিউট ও ফ্যাকাল্টি পরিদর্শন করে ফেব্রুয়ারির শেষে বাংলাদেশে ফিরবেন।

তিনি গ্লোবাল ফোরাম ফর সাসটেইনেবল রুরাল ডেভলপমেন্ট (GFSRD) এর কান্ট্রি ডিরেক্টর, ধ্যইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ বিজনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজি(IUBAT) এর ইনস্টিটিউট অফ এসডিজি স্টাডিজ(IISS) বিভাগের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর, স্কটল্যান্ড ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সাসটেইনেবল প্রকিউরমেন্ট এন্ড সাপ্লাই চেইন (SPSC) এর বাংলাদেশ কান্ট্রি হেড এবং সিমেক ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারের এসডিজি কনসালট্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সিমেক ইনস্টিটিউটের ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার কার্টিন ইউনিভার্সিটি এবং ইউনিভার্সিটি অফ সানশাইন কোস্ট এর যৌথ অংশগ্রহণে বাংলাদেশে এসডিজি লোকালাইজেশন এবং ব্লু ইকোনমি বা সামুদ্রিক অর্থনীতি বিষয়ে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।
এবছর তিনিসহ মোট ১৪ জন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া সরকারের অর্থায়নে এ গুরুত্বপূর্ণ ‘অস্ট্রেলিয়া অ্যাওয়ার্ড ফেলোশিপে’ মনোনীত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেন;
অর্থ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. সানোয়ার জাহান ভূঁইয়া ; এজটেক্স ফাউন্ডেশনের ফেলো এন্ড সাস্টেইনেবিলিটি এডভাইজার আবদুল্লাহ আল মাহের; সিমেক গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক মিস ফুয়ারা ইয়াসমিন; সিমেক ইনস্টিটিউটের ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারের প্রধান সমন্বয়কারী ড. রতন কুমার রায় প্রমুখসহ আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, গবেষক ও সম্মানিত বিশেষজ্ঞ।
মুহাম্মাদ শরিফুর রহমান কুমিল্লা জেলার বুড়িচং থানাধীন ষোলানল ইউনিয়নের শিবরামপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বর্তমানে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৫৪ নং ওয়ার্ডে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। বাংলাদেশ পুলিশের একজন সাবেক গর্বিত সদস্য তাঁর পিতা মরহুম মোঃ ইউনুস মিয়া ও মাতা রোকেয়া বেগমের ৫ সন্তানের মধ্যে তিনি ২য়। তার প্রাথমিক শিক্ষা শুরু রাজারবাগ পুলিশ লাইনস্ হাই স্কুল থেকে, টঙ্গীর নিশাত জুট মিলস্ আদর্শ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি; তেজগাঁও কলেজ থেকে এইচএসসি; কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজতত্বে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার কার্টিন ইউনিভার্সিটিতে সাসটেইনেবিলিটি’র উপর পিএইচডি(Ph.D) করছেন।

তিনি জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ২০৩০, বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সমন্বয়ে বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামকে টেকসই, উন্নত, বেকারমুক্ত ও দারিদ্রমুক্ত করার লক্ষ্যে নিরলসভাবে গবেষণা ও কাজ করে যাচ্ছেন। এসডিজি গবেষণায় তিনি ইতোমধ্যে আফ্রিকার কেনিয়া, তানজানিয়া, উগান্ডাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিদর্শন করে বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। বর্তমানে ঢাকা, কুমিল্লা, পাবনা ও জামালপুর সহ দেশের বিভিন্ন উপজেলায় এসডিজি মডেল ভিলেজ প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখছেন।

মুহাম্মাদ শরিফুর রহমান “এসডিজি মডেল ভিলেজ বাংলাদেশ” এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হিসেবে দেশের প্রতিটি সচেতন নাগরিক ও সমাজ উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠান নিয়ে একসাথে কাজ করতে আগ্রহী। প্রতিটি গ্রামে জাতিসংঘের ১৭টি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন করে বাংলাদেশের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সুখী সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে অবদান রাখতে তিনি সবার দোয়া ও অংশগ্রহণ কামনা করেন।। SDG Model Village Bangladesh এর গর্বিত সদস্য হয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশকে একটি টেকসই উন্নত দেশ হিসেবে এগিয়ে নিতে তিনি সকল উন্নয়নকামী জনগনকে আহ্বান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here