ঈশ্বরদীতে মুক্তিযোদ্ধা সেলিম হত্যার সন্দেহভাজন আসামী আরজু বিদেশী পিস্তলসহ গ্রেফতার

0
23
ঈশ্বরদী  (পাবনা) প্রতিনিধি ॥ পাবনা ঈশ্বরদীর বিবিসি বাজার সংলগ্ন স্কুলপাড়ার নিজ বাড়িতে আততায়ীদের গুলিতে নিহত হওয়া আওয়ামীলীগ নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম হত্যা মামলার সন্দেহভাজন আসামী আব্দুল্লাহ আল বাকি ওরফে আরজু বিশ^াস (৪৮) কে বিদেশী পিস্তলসহ আটক করেছে পুলিশ। তিনি পাকশী ইউনিয়নের এমদাদুল হক টুলু বিশ্বাসের ছেলে ও পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং পাকশী ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক এনাম বিশ^াসের ভাতিজা। আরজু ঈশ্বরদী উপজেলা যুবলীগের সাবেক সহ সভাপতি ছিলেন।
পাবনা জেলা পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম পিপিএম ঈশ^রদী থানায় সোমবার বেলা ১২টা ৩০মিনিটের সময় সংবাদ সম্মেলনে জানান, গতকাল (রবিবার) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঈশ^রদী থানা পুলিশ পাবনার হেমায়েতপুর পাকা রাস্তা থেকে আরজুকে আটক করে। গ্রেফতারের পর স্বীকারোক্তি অনুযায়ি আরজুর শয়ন ঘরে থাকা আরএফএল এর একটি গোলাপী রঙ্গের প্লাষ্টিকের ঢোপ থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, একটি ম্যাগজিন ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। ঈশ^রদী থানার মিলনায়তন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য দেন পাবনা পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম পিপিএম।
লিখিত বক্তব্যে ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার বলেন, গত ৬ ফেব্রুয়ারি মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম আততায়ীদের গুলিতে নিহত হওয়ার পর থেকে আরজু বিশ^াস পলাতক ছিলেন। বিভিন্ন তথ্যের ভিত্তিতে এই হত্যায় সংশ্লিষ্টতা থাকার সন্দেহে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আরজু বিশ^াস সেলিম হত্যা সম্পর্কে কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, গ্রেফতারকৃত আরজু বিশ^াসকে অস্ত্র এবং সেলিম হত্যা মামলায় আদালতে হাজির করে রিমান্ডে এনে সেলিম হত্যা মামলা সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। ঈশ্বরদী   থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, গ্রেফতারকৃত আরজু বিশ^াসকে আজ ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে কোর্টে প্রেরণ করা হয়। আরজুর বিরুদ্ধে এর পুর্বে একটি হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

LEAVE A REPLY