রেবা হাবিবের নির্বাক অন্তরের কবিতা “প্রাক্তন কে না বলা কথা ”

111
রেবা হাবিবের নির্বাক অন্তরের কবিতা “প্রাক্তন কে না বলা কথা ”

প্রাক্তন কে না বলা কথা
রেবা হাবিব

এতো অভিমান আমি কোথায় রাখি?
সংসার নামক অবরুদ্ধ বন্দিশালা যদি পৃথিবীতে
না থাকতো আমি হারিয়ে যেতাম
নগ্ন শরীরে সমগ্র জঙ্গল চষে বেড়াতাম।
আর খুঁজে হয়রান হতাম প্রাক্তন কে!!
যার প্রতিটি বিশ্বাসঘাতকতা রক্তে
পুস্ট হয়ে নিঃস্ব করেছিল।

প্রাক্তন রা কখনো বোঝেনা বিষন্ন সন্ধ্যায়
ঝরা পাতাদের গান!
তারা মানতে চায় না পূর্ণতা পেলেই
ভালোবাসা মরে যায়।
অনেকে স্বেচ্ছায় না বুঝে প্রাক্তন হয়ে যায়!
অনেকে না পাওয়ার যন্ত্রনায় হাহাকার করে।
প্রাক্তনদের মনো বৃক্ষের বীজ হয় না!
অঙ্কুরিত হবার আগে ঝরে পড়ে।
প্রাক্তনের শূন্যতা অদ্ভুত এক বাঁধনে জড়ায়!
যেখানে থাকে শুধু মায়া আর মায়া।

আমি হয়তবা ছিলাম অনেকের ক্রাশ!
কিন্তু আমার যেজন ক্রাশ! আমার সেই প্রাক্তনের
প্রতি এক ধরনের অদ্ভুত মায়া ছিলো।
সেই মায়া থেকে গভীর ভালোবাসাও ছিলো।
কিন্তু আমি স্বেচ্ছায় আমার জীবনে প্রাক্তন কে এনেছিলাম বারবার প্রতারিত হওয়ার জন্য।

প্রতারিত হওয়ার মধ্যে বিষন্নতার সাথে অন্যরকম
আক্রমণাত্মক সুখ কাজ করে।
এই সুখে আমিও অভ্যস্ত হতে চেয়েছিলাম!
প্রাক্তন যখন সামনে এসে দাঁড়ায়
তারদিকে প্রচন্ডরকম ঘৃণার চোখে তাকাই!
ঠোঁটে মৃদু হাসি রাখি।
পৃথিবীতে এতো ঘৃণা কেউ করেছে কিনা জানা নেই।
মিথ্যা ভালোবাসা মনে জাগিয়ে তুলি!
বুঝতে দেইনা চোখের আয়ু কমে গেছে
তুমিও হয়েছ পুরাতন।
প্রাক্তনরা অজ্ঞাত কারণে বারবার ফিরে আসে!
স্মৃতির গোড়ায় লবণ জল ঢালে।
অনেকেই আবার হয়ে যায় একান্ত ঘন প্রেমী মনের।
সবুজ তপবনে বেড়ে উঠা বৃক্ষে
কেউ দেখতে চায় না ঝরা পাতার কান্না!

প্রাক্তনের মিথ্যাচারিতা, ভালোবাসার অভিনয়ের
কাছে প্রশ্ন থাকে, কোথায় ছিলে এতোদিন?
নীল খামগুলো স্বর্গের হাওয়ায় ভেসে
যখন উড়ে যায়, বিষন্নমুখে হলদে পাখিটি মুচকি হেসে আলতো হাওয়ায় ফিরে তার নীড়ে।
শূন্যতার প্রহরগুলো কেটে গেছে বিষন্ন মেঘের
দলের মাঝে।
অভিশাপ নেই নি, অভিশাপ দেইনি।
শুধু চেয়েছিলাম বিশ্বস্ততা, প্রগাঢ় ভালোবাসা!
আমি আমার প্রাক্তনকে সুযোগ দেই বারবার
প্রতারণা করার। সে যতবার প্রতারণা করবে,
আমি ততবার শক্ত একজন নারী হবো।
আমি জানি সে ভয়ানক প্রতারক!
তারপরও সে আমার ক্রাশ আমার প্রাক্তন!!
অন্যরকম ভালোলাগা, ভালোবাসা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here