“সমীরণ এখানে আর নয় ”কবিতাটি লেখনির আলোয় আলোকিত করেছে কবি সৈয়দা কামরুন নাহার শিল্পী।

369
সমীরণ এখানে আর নয়
কবি সৈয়দা কামরুন নাহার শিল্পী

সমীরণ এখানে আর নয়

                        সৈয়দা কামরুন্নাহার শিল্পী

সমীরণ, আর এখানে নয়
তুমি গ্রামে চলে যাও–
তোমার ঘর তোমার ভিটায়
ফিরে যাও সমীরণ।

দুঃখ করো না
আজ তোমার বসত ভিটা তোমার জন্য অপেক্ষা করছে–

তোমার আবাদি জমিতে সোনার ফসল ফলে আছে
সেখানেই ফিরে যাও তুমি। ইঁদুর কে আর গর্ত করে
পাকা ধানের শীষ কেটে নিয়ে যেতে দিও না!

তোমার বাড়ীর পাশের বাঁশ ঝাড়ে শুকনো পাতা
ঝরে ভরে আছে, নিজ হাতে ঝাড়ু দাও সমীরণ।
পরিস্কার কর, তোমার নিজ হাতে লাগানো
বাঁশ ঝাড়ে করুল বাঁশ গুলো যত্ন করে বেড়ে তোল।

তোমার উঠোন ঝাড়ু দাও, গাছের শুকনো পাতা পরে
উড়িয়ে মর মর শব্দ হচ্ছে-
সমিরণ, তুমি বাঁশের ঝাড়ু দিয়ে পাতা ঝেড়ে
উঠোনে মাটির চুলো ধরিয়ে ভাত রাঁধ,
বেগুন ভাতে দিয়ে।

তোমার কলা গাছে কলা পেঁকে আছে
সুপুরী গুলো পেকে ঝরে পড়ে আছে।
সুপুরী গাছে লাগানো পান গাছ টাও তোমার
পানে চেয়ে আছে–

সমিরণ দুঃখ পেওনা
তোমার ঘর তোমার বাড়ী সব তোমার।
এখানেই এসে আম গাছের নীচে বাঁশের মাঁচা পেতে
পান চিবুতে চিবুতে জিরিয়ে নেবে–

এখানে কেউ তোমাকে তোমার চলা-ফেরা,
ওঠা-বসা খাওয়া-দাওয়া
কথা বলা নিয়ে
তাদের মনের মতো
গল্প বানাতে পারবে না।

ফিরে এসো সমিরণ-
রক্তের মায়ার বাঁধন যেখানে-প্রবঞ্চনা করে
সেখানে তুমি আর নাইবা থাকলে।

ফিরে এসো সমিরণ, আমার মাটির ঘরে।
আমার বুকের পরে–
আমার ভালোবাসা ছেড়ে আর কোথাও যেও না
সমিরণ!
আর কোথাও যেওনা-

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY