“মৃত্যুযজ্ঞ”কবিতাটি লিখেছেন সাহিত্যের অন্যতম সারথি ওপার বাংলার কবি সেক জাহেদ উল্লা।

259
“মৃত্যুযজ্ঞ”কবিতাটি লিখেছেন সাহিত্যের অন্যতম সারথি ওপার বাংলার কবি সেক জাহেদ উল্লা।

মৃত্যুযজ্ঞ

সেক জাহেদ উল্লা

বানিয়েছিলাম মৃত্যুর জন্যই –
গোলাগুলি, পরমাণু বোমা ।
হিংসার রঙে রাঙিয়েছি আকাশ –
করিনি তো কাউকে ক্ষমা ।।
ইতিহাসের পাতাতে ও দেখি –
লোভ আর হিংসার দখল ।
আরও কত নির্দয় রক্তপাত –
লেখা হয়নি যার সকল ।।
রচনা করেছি ছোট বড়ো –
কিংবা দু দুটো বিশ্ব-যুদ্ধ ।
কানে নিইনি কারো কথা –
সে যীশু হন বা বুদ্ধ ।।
কাগুজে পাতায় আটকে রেখেছি –
গীতা বা কোরানের বানী ।
ভাণ্ডার ভরেছি বিপুল জ্ঞানের –
কিন্তু কতটাই বা মানি ?
স্বার্থের জন্য ব্যবহার করেছি –
ধর্মের ব্যাখ্যা, করেছি ভুল ।
জংলী ছিলাম, অসভ্য ই আছি –
“মানুষ” হইনি একচুল ।।
যুগে যুগে তিনি দূত পাঠিয়ে –
সতর্ক করেছেন বারবার ।
রাম, কৃষ্ণ , মোহম্মদ , নানক –
সাধু ফকির কত আর ।।
ব্যর্থ সবাই জাগাতে আমাদের –
আমরা বুঁদ, ক্ষমতার নেশায় ।
সৃষ্টিকে দেখিয়েছি বুড়ো আঙ্গুল –
ছুটছি দিগ্বিজয়ের আশায় ।।
পায়ের তলায় কে মরছে –
সেদিকে নেইকো মোটে হুঁশ ।
বাধ্য নিয়তি তুলে নেয় হাতে –
তার নিয়ন্ত্রনের অঙ্কুশ ।।
যে মানব-মৃত্যু চেয়েছিলাম –
নিজ প্রজাতির রক্ত ঝরিয়ে ।
তাই করছে নিয়তি নিজে –
রক্ত স্রোত না বইয়ে ।।
মৃত্যু যজ্ঞের অসম্পূর্ণ কাজটা –
সেই না হয় করুক ।
ঝড় উঠেছে , ফসল আগাছা –
সব একসাথেই মরুক ।।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY