“চলো যাই বৃষ্টিস্নানে”ছোট গল্পটি লিখেছেন কবি ও সাহিত্যিক রেবা হাবিব ।

46
“চলো যাই বৃষ্টিস্নানে ” ছোট গল্পটি লিখেছেন কবি ও সাহিত্যিক রেবা হাবিব ।
কবি ও সাহিত্যিক রেবা হাবিব

চলো যাই বৃষ্টিস্নানে

               ———————-
                   রেবা হাবিব

…………………

সকালে কোথাও বৃষ্টি হয়েছে তারই মৃদু ঠাণ্ডা বাতাস চোখে মুখে এসে লাগছে। জানালা থেকে সরে মুঠোফোনটি হাতে নিতেই একটি মেসেজ।
কতদিন হবে শেষ দেখার??
তা ঠিক মনে নাই, তবে হিসাব করলে আসবে ৭/৮ বছর।
এত বছর ??
কেন সীমান্ত! বছরগুলিও কি তুমি তোমার মুঠোফোনে আর ফেবু আইডিতে ব্লক করে রেখেছ নাকি?? আমিত রাখিনি, সে রাস্তাও তুমি রাখনি এমনকি মনের আইডিতেও না।
আমাকে তোমার মনে আছে পুস্প ??
কেন থাকবেনা!! তাহলে আজ তোমার এই খুদেবার্তার উত্তর আমি দিতামনা।
এতদিন কোথায় ছিলে?? অপেক্ষায় ছিলাম তোমার ফোনের।
আমি চলে যাওয়াতে কষ্ট পাওনি ??
হয়ত পেয়েছি বা পাইনি।
আমরাতো ভালো বন্ধু ছিলাম বাস্তবের রাস্তায় হেঁটেছি অনেক।
এখন কেন হাঁটছি ইন্টারনেটের রাস্তায়?? এই রাস্তাতো আমি চাইনি।

আমিত চলে যেতে বলিনি তোমায়। আমার প্রতি সন্দেহ আর অবিশ্বাস তোমাকে দূরে নিয়ে গেছে। জীবনের বন্ধুত্বের বাস্তবতা টিকিয়ে রাখা কিন্তু অনেক কষ্টের। ছোট্ট এই জীবনে সবকিছুর বিনিময়ে কাউকে বন্ধু হিসাবে চাওয়া তার পাশে থাকার অঙ্গীকার করা ছেলেখেলা নয়। কিন্তু সন্দেহের দৃষ্টি নিয়ে ধীরে ধীরে মানুষটির কালক্রমে আনফ্রেন্ড হয়ে যাওয়া, এটা আমাকে মেনে নিতে হয়েছে ভেঙে চুরমার হয়ে।

তোমার মনে আছে সীমান্ত??
প্রচণ্ড গরমে দুর্বিষহ তাপদাহে পুড়ছিল দেশ। সকালে নাস্তা না করেই কষ্টে পাওয়া সিনজি করে ১ম দেখা করতে যাই তোমার সাথে। তোমার বাইকে চড়ার পর ভয়ে চোখ বন্ধ করেছিলাম আমি। আর ওইদিনই ছিল শেষ দেখা। ভালোবাসার কমতি ছিলনাত সেদিন। তাহলে কেন চলে গেলে??

ভালোবাসার স্বর্গোদ্যানের ভুমিতে সাজিয়ে রেখেছিলে এক অন্যরকম জাদুময় অনুভুতি। হয়তো সেদিন মুষলধারে বৃষ্টি হলেও সে অনুভুতির রেশ থেকে যেত আরও বেশি। তোমাকে হারিয়ে জীবনের সব লেনাদেনা শেষ করে বন্ধুত্বের নিছক পাগলামি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলাম। তোমার আজ হঠাৎ এই খুদেবার্তা যেন সদ্য ফোঁটা শুভ্র কাশফুলের মত।
ভুলে যাও পুস্প সবকিছু। আমিত আবার তোমার কাছেই ফিরে এসেছি।
চলো ইন্টারনেটের পাতায়না বাস্তব জীবনের আনন্দ-বেদনার পাতায় আমরা আবারো একসাথে হাঁটি।
এখনো বাস্তবে আসোনাই সীমান্ত। ইন্টারনেটেই আছো।

কি চুপ কেন?? কিছু বল পুস্প ??
ভাবছি সীমান্ত। কি ভাবছও??
তোমার সেন্ড করা এই ছবি দেখে ভাবছি তোমার এই গাল ভরা দাঁড়ি-গোঁফ কেন??
অসহ্য লাগছে আমার। ইচ্ছা করছে… কি ইচ্ছা করছে শুনি??
ইচ্ছা করছে মৃদুমন্দ বাতাসে বৃষ্টিস্নান করি। ভিজাই তোমাকে।
শূন্যতাকে পিছনে ফেলে হালকা আনন্দগুলো উপভোগ করি ঝড় থেকে নিজেদেরকে বাঁচিয়ে।
আর কুমার বিশ্বজিৎ এর ওই গানটি শুনি ……যেখানে সীমান্ত তোমার… সেখানে বসন্ত আমার.…..

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY