অনুভূতির তাড়না থেকে“তবুও ভালোবাসি-”কবিতাটি লিখেছেন তারুণ্যের কবি-রাশেদুল ইসলাম ।

519

–তবুও ভালোবাসি —

                      রাশেদুল ইসলাম 

পাশা পাশি হয়নি দুজনার বসা,
চোখাচোখির হিসাব হয়নি কষা!
দেখাও হয়নি খুব কাছে থেকে ঐ মায়া হাসি,
না দেখেছি সামনে থেকে নিশ্বাসের নাক বাঁশি!

তবুও তোমায় খুব ভালোবাসি।

এক সাথে হয়নি দুজনের পথ চলা,
মুখোমুখি বসে হয়নি কথা বলা!
দেখাও হয়নি কাছে থেকে তোমার স্বর্ণলঙ্কার পরা গলা,
তবুও মন বড় উতলা!

দেখিনা চোখে আমি তোমায়, তবে স্বপ্ন দেখি রাশি রাশি!
তবুও তোমায় খুব ভালোবাসি।

হাত রাখা হয়নি কখনও দুজনের হাতে ,
রেস্টুরেন্ট এ ভুরি ভোজন হয়নি কখনও এক সাথে!
পথ হেটে দেখাও হয়নি কেমন তোমার ছায়া,
আমি দেখেছি কেবল তোমার আছে মায়া!

সে মায়া বানে গেলাম ভাসি!
তবুও তোমায় খুব ভালোবাসি।

কিনে দেওয়া হয়নি একটা হাত ঘড়ি,
মেলা থেকে কিনে দেওয়া হয়নি রেশমি চুরি!
আলতা,ফিতা, স্নো,দেইনি!
দেইনি কিনে গলার হার,
তবুও তুমি মিশে গেছো সাথে আমার হৃদয়ে হয়ে ভার!
তুমি কি করে করিলে গো এক পাসি!

তবুও তোমায় খুব ভালোবাসি।

দেখা হয়নি তোমার ভেজা ভেজা চুল,
খোঁপায় গুজানো হয়নি কাঠগোলাপ ফুল!
কাছে থেকে খুব করে দেখাও হয়নি তোমার ভ্রুর ভাঁজ,
সেটাও দেখা হয়নি তোমার নাক ফুলের সাজ!

তোমার মনের রশিতে গলায় লেগেছে ফাঁসি!
তবুও তোমায় খুব ভালোবাসি।

একটু কাছে থেকে দেখাও হয়নি তোমার চোখ কাজল,
পাশে বসে মাথায় রাখা হয়নি লুকাচুরি খেলার ভানে আঁচল!
হয়নি আঙুল ছোঁয়া, হয়নি শরীর ছোঁয়া, ছুঁয়ে দেখিনি রূপ!
তোমার প্রেমে প্রেমিক হলাম,
হৃদয় হলো চুপ,
আমার মন পুকুরে দিয়ে যাও গো তুমি সকাল বিকেল ডুব,
বারে বারে ভুল করে এসে!

তবুও মন যায় তোমায় খুব ভালোবেসে।

কে সে গো কে সে,
আমার হৃদয় ছুঁয়ে যায় এসে!
বাতাসে উড়ে, আলো হয়ে ভেসে
সে যে মোর মহারানী,
তোমায় ভালোবেসে!
ভরে যায় হৃদয় খানি।

মনে লাগাও দোল
কোথা হতে আসি আসি,
ভালোবাসি গো বাসি —
তবুও তোমায় খুব ভালোবাসি।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY