“হেমন্তের দীর্ঘশ্বাস”কবিতাটি লিখেছেন কলমযোদ্ধা-রীতা ধর

244
“হেমন্তের দীর্ঘশ্বাস ”কবিতাটি লিখেছেন কলমযোদ্ধা-রীতা ধর

হেমন্তের দীর্ঘশ্বাস

                      রীতা ধর

তোমার জোছনা রাত আর আমার দুঃখব্যথার
মধ্যকার পার্থক্য হলো একটি কবিতা,
তোমার জোছনা রাতের এক প্রহরে আমার
বিলাস অন্য প্রহর আমার দুঃখ লেখার ক্ষণ।
তোমার রক্ত দোলায় ফুলের ঘ্রাণ
আমার অন্ধকার মৃত্যুর দূত।
প্রেমকে ডেকেছি আমি, ওহে দুঃখ
ভীষণ বেদনায় ঢেলেছ মৃত্যুর সুখ,
তুমি আমাকে ভালোবেসে
এক চোখে রেখেছ অপার সমুদ্র
অন্য চোখে রিক্ত বুকের পাহাড়
আর আমার কবিতার প্রাণ সেখানেই।
আমার প্রেমের নাম ছিল দুঃখ
দুঃখের নাম ছিল কবিতা
কবিতার নাম ছিল ছোট্ট নদী
নদীতে গেরুয়া রঙের জোছনা।
জোছনার সে জলে তোমার চোখে দেখেছি
আমার বিবর্ণ উজ্জ্বলতা
সে উজ্জ্বলতায় দুঃখ প্রেমে এনেছিলাম
একঝাঁক মাছরাঙা প্রেম।
তখন ছিল হেমন্তের সন্ধ্যা, আবছা কুয়াশায়
শীতার্ত পথগুলো ছিল ঘুমিয়ে
উত্তরের হাওয়া গোধূলির ঠোঁট ছুঁয়ে গড়িয়ে
পড়েছিল সন্ধ্যার পাহাড়ে
তখনই নাগকেশরের পাপড়ি মেলেছিল প্রথম,
আমার কবিতার মতোই আশ্চর্য পবিত্র
আমি তার নাম রেখেছিলাম উজ্জ্বল অন্ধকার।
তোমার কাছে ছিল পাখির পালকের মতো নরম পাপড়ি,
আমার কাছে উজ্জ্বল অন্ধকার
পাতাঝরা হেমন্তের বিষণ্ণ রোদন।
জীবনের একান্ত অর্জন এই একটি কবিতা
আমি ছুঁড়ে দিলাম তোমার দিকে,
ছুঁড়ে দিলাম শিশির জমানো একটি পাহাড়
ছুঁড়ে দিলাম আমার কবিতার ছোট্ট নদী
নদীতে ভেসে যায় হেমন্তের দীর্ঘশ্বাস,,,

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY