“অভিমান”কবিতাটি সৃষ্টিশীল লেখনির আলোয় আলোকিত করেছেন কবি সাহানা ।

520
সৃষ্টিশীল লেখনির আলোয় আলোকিত করেছেন কবি সাহানা ।

অভিমান

                 সাহানা

ও গো প্রিয়ো,
চেয়ে দেখো,কে এসেছে তোমার দাওয়ায়?
শ্রাবণও ধারা বয় চারিদিকে, গগন ও গরজায়।
থৈ থৈ অথৈ জলরাশি পূর্ণ কানায় কানায়।

আধার কালো মেঘ জমে, প্রকৃতি প্রকম্পায়।
আজ জলধি রাজ তরঙ্গ টানে উছলায়,
নোঙ্গর ভিড়ানো খেয়া ঘাট,তলায়।

পূবালী হওয়া শিহরিত দোলা দেয়,
এমনও লগনে বধূয়ার চরণে আলতা শোভা পায়।
চেয়ে দেখো প্রিয়ো,
অমন মধুময় রাত বৃথা যায়।
সকল অভিমান ভুলে, কাছে পেতে কি মন না-ই চায়?

শ্রাবণও রাতে আলিঙ্গনে জরাতে,
প্রিয়তমার সান্নিধ্য পেতে,বাহুডোর বন্ধনীতে,
কত প্রেমিক মন উতলায়,আজ এ লগনও মাঝে তুমি কেন অসহায়?

প্রেমময় লগনে প্রিয়ার আগমনে, তোমার হিয়া না দোলায়,

ও গো চেয়ে দেখো,কোন ঝড়ো হাওয়া বয়।
উত্তাল তরঙ্গ টালমাটাল টানছে আমায়,
অঞ্চল খানি হায়, আটকালো কোথায়?
কে আমার পিছু পিছু ধায়,চরণ ও যুগল টানলো জলধারায়।
কেমনে ফিরবো ঘরে নোঙ্গর তো চলে যায়।

তুমি কি একবারও চাইবেনা ভুলে
আমারে লয়ে যায় মরা মেঘনায়,
একবার মুখখানি তুলো, চেয়ে দেখো প্রিয়,
আর যদি দেখা নাইবা হয়
মনে রেখো এসেছিলাম তোমার দাওয়ায়,।

প্রতি বরষায়,ফুল চন্দন মালা হাতে
ফেলে দিয়ে যেও, এই রাক্ষসী মেঘনাতে।
যে করলো বদ তোমা হতে আমায়।
এবার তবে দাও গো বিদায়।
অঞ্চল খানি যদি মেঘনার জলে ভাসায়,
বুঝে নিও প্রিয়ো,
এসেছিলাম তোমার মান ভাঙ্গানোর আশায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here