হায় মৃত্যু! হায় চিরন্তন! “করাল গ্রাস ” কবিতাটি লিখেছেন কবি রীতা ধর

65
কবি রীতা ধর

“করাল গ্রাস”

                 রীতা ধর

অশরীরী শকুনির অতৃপ্ত থাবায়
গ্রাস করে আছো আমাদের পথ।
বুকের মধ্যে অজানা শঙ্কা, নিষ্প্রাণ নিস্পন্দ শরীর।
আকাশ থেকে যখন বর্ষিত হয় মৃত্যুর মতো অনাহুত অন্ধকার
বিদায়ী পরোয়ানা অসহ্য অঙ্গ বিভঙ্গে
দোলায় কুন্তল।
অদৃশ্য করাল মোমের মতো দেহ থেকে দেহে ছড়িয়ে পরে রক্তের স্রোতে,যন্ত্রণার বন্যায়।
স্বস্তির নিঃশ্বাস শ্বাসরুদ্ধ হয়ে প্রিয় হারা শোকের মাতমে স্তব্ধ, নির্বাক।
আহ! মহা প্রলয়ের কী ভয়ঙ্কর বাণী!
দুর্বিষহ বাণী!
আমাকে দাঁড় করালো কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি
দুজনে দূরত্বহীন, কাছাকাছি।
তবুও যেন আজন্ম ছোঁয়াহীন, নিষ্পলক তাকিয়ে থাকা
নিবিড় নিরালায় ক্ষয়িত হৃদয়ের দীর্ঘশ্বাস হয়তো আমাকেও ইতিহাস করে নেবে

মৃত প্রাচীরের জং ধরা পেরেকের গায়ে।
ঘু ঘু ডাকা দুপুরে অলিন্দের গোলাপ ছিঁড়ে নিবে হয়তো অপ্রতিভ গ্রীষ্মের দাহ।
আকস্মিক আগুনের লেলিহানে বিধ্বস্ত শরীর জুড়ে মৃত্যুর নির্মম কান্না!
হায় মৃত্যু! হায় চিরন্তন!
ক্ষমা করো,ক্ষমা করো,
বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডের এ কী অমানবিক মুক্তি!
Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY