“আবাহন”কবিতাটি সৃজনশীল লেখনির আলোয় আলোকিত করেছে ভারত থেকে তারুণ্যের কবি চম্পা মন্ডল।

416
ভারত থেকে তারুণ্যের কবি চম্পা মন্ডল

আবাহন

              চম্পা মন্ডল

ত্রস্ত জমেছে কত জমেছে প্রতিকুল
কিভাবে যে থেঁতলে গেছে নৈবদ্যের ফুল।
রাতের স্বপ্নে যদি জিঘাংসা রয়
মুখোশের রোমে রোমে ভ্রষ্টাচার বয়।
জানি ভুল মন্ত্র পড়ে গেছো এতকাল ধরে
সংক্রমণের কটুবিষ জরায়ু গভীরে।
জলের ভিতরে বড়ো অন্ধকার আজ
জীবনপ্রবাহে ফেলে ক্ষণেক্ষণে বাজ।
ছেঁড়া বাকলের মতো প্রাকৃত অভ্যাস
টান মেরে ফেলে দাও বুকে ভরো শ্বাস।
শুদ্ধতা খুঁজে নাও ঋত্বিকের হাতে
আগামী উঠছে সেজে মাঙ্গলিক প্রাতে।
হোমাগ্নি জ্বালিয়ে দাও নানা উপাচারে
আবাহন গীত গাও প্রার্থনার সুরে।
দুঃখ সব ঝরে যাবে পুড়ে যাবে তাপে
মোহভঙ্গের কাল আর ভরোনাগো পাপে।
আকাংখার পুষ্ট বীজ ছড়াও প্রান্তরে
শৈশবের কাল ভরো সুরভি আতরে।
সাহস জাগিয়ে রাখো বুকেরই ভিতর
পাখিদের সুরে ভোর হবেই মুখর।
বিন্দু বিন্দু স্বপ্নকলি আকাশের নীলে
ফোটাই পাপড়ি শত এসো সবে মিলে।

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here