“কাছে এসো ”কবিতাটি লিখেছেন ব্যতিক্রম পরিক্রমায় বিরল প্রতিভাধর কবি সৈয়দা কামরুন নাহার শিল্পী ।

339
“কাছে এসো ”কবিতাটি লিখেছেন ব্যতিক্রম পরিক্রমায় বিরল প্রতিভাধর কবি সৈয়দা কামরুন নাহার শিল্পী ।
সৈয়দা কামরুন নাহার শিল্পী

কাছে এসো

                সৈয়দা কামরুন নাহার শিল্পী

এসো কাছে এসো
ফিরে আর যেতে দেব না তোমায়
তোমাকে নিয়েই দেখব হৃদপিন্ডে যত জমে আছে দুঃখ-কষ্ট তিরস্কার।

তোমার নিঃশ্বাসের মাঝে আমার নিঃশ্বাস কেঁপে উঠুক।

যখন চারদিক হত্যার উল্লাসের আনন্দে
কত পরিবার কত গ্রাম
কত শহর ধ্বংস করে জীবনকে শেষ করে দিয়ে গড়ে উঠেছে বদ্ধভূমি।

তখন নীরবে কেঁদে ছিল লাল রক্তের বন্যায় ভাসিয়ে পদ্মা মেঘনা যমুনা
এমনি আরো অনেক নদীতে ভেসে উঠেছিল যখন ফোলা ফাঁপা মৃত মানুষের লাশের সঙ্গে তরতাজা ইলিশ মাছ!

প্রশ্ন করো বিবেককে
তখন আমরা কেমন ছিলাম? ওরা যাই বলুক আমি তো জানি, তোমরাও তো দেখেছো!
সে সময় সধবা-বিধবা
কন্যা -জননী বলে
কিছু ছিল না, নরপশুদের কাছে।

সেই কথাগুলো মনে করি এই পবিত্র শহীদদের রক্তে রাঙানো পতাকার নিচে দাঁড়িয়ে,
আমরা এই সময়ের পদাবলী লিখব।

পাহাড় ধসে পড়ুক সত্য ছড়িয়ে পড়ুক-
কোন এতিম কোন জারজ
পাক পিতৃত্বের পরিচয়ে নয়।
সূর্যের মতো সত্য সে বাংলা
মায়ের কষ্টের সন্তান।

আজ সময় এসেছে ভীষণ নিরপেক্ষ হয়ে নিঃস্বার্থভাবে কাঁপিয়ে তোলা বাংলার পতাকা।
এখানে কোনো শত্রু সন্তানদের প্রশাসনের স্থান হতে দেয়া যেতে পারে না!
তা না হলে, আমরা যে আবার অনেক অনেক পিছিয়ে যাবো!

Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY