“দায়িত্ব” বিশ্লেষণ ধর্মী লিখা লিখেছেন রিটন মোস্তাফা

1925
readers-opinion-doinik-alap
রিটন মোস্তাফা

দায়িত্ব

      – রিটন মোস্তাফা

 

দায়িত্ব। শুধু এই শব্দটাকে যদি আমরা আমাদের জীবন যাপনে সঠিক ভাবে কাজে লাগাই,তাহলে অন্যের কাছে আমাদের গ্রহণযোগ্যতা এবং জীবনের সার্থকতার ব্যাপারে যে হাহুতাশ করি, তা পরিপূর্ণ ভাবেই পেতে পারি। এবং জীবন সেই স্থানে আপনাকে আমাকে নিয়ে যেতে পারে,যেখানে প্রচুর সম্পদ খরচ করেও কেউ যেতে পারে না । একজন আদর্শ মানুষ হবার এটাই সহজ এবং উত্তম রাস্তা বলে আমার কাছে মনে হয় ।

তাহলে এই দায়িত্ব সম্পর্কে আমরা কিভাবে বুঝবো এবং পালন করবো তা একটু আমি আমার মতো করে বলি।

[এক] জন্ম যখন সৃষ্টিকর্তা আমাদেরকে দিয়েছেন, তখন অটোমেটিক তাঁর প্রতি আমাদের উপর কিছু দায়িত্ব এসে যায় । সৃষ্টিকর্তার প্রতি আমাদের দায়িত্ব হলো তাঁর আদেশ নিষেধ মেনে চলা। খারাপ কাজ থেকে বিরত থাকা। অন্যের ক্ষতি না করা। ইত্যাদি……।

[দুই] মা বাবা আমাকে পৃথিবীতে আসতে সৃষ্টিকর্তার মাধ্যম হিসাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। তাঁরা আমার জন্মদাতা । সুতরাং ঐ একই সুত্রে সন্তান হিসেবে মা বাবার প্রতি আমাদেরও অনেক দায়িত্ব বর্তে যায় । সেটা সঠিক ভাবে পালন করা

আরো পড়ুন: আমেরিকা থেকে কবি ও লেখক সাহানুকা হাসান শিখা এর নূতন প্রজন্মদের নিয়ে লেখা “অভিভাককের সতর্কতা”

[তিন] আমরা কারো না কারো ভাই অথবা বোন। সেই ক্ষেত্রেও অন্য ভাই বোনদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব আছে এবং সেটা সৎ ভাবে পালন করা।

[চার] আমরা একটি পরিবারে বেড়ে উঠি। আর সেই বেড়ে ওঠার পিছনে প্রতিটি পরিবার অনেক বড় ভূমিকা রাখে। সুতরাং পরিবারের প্রতিও আমাদের অনেক দায়িত্ব আছে। আর সে দায়িত্ব গুলো সঠিক ভাবে পালন করা।

[পাঁচ] আমরা সামাজিক জীব । সমাজও আমাদেরকে বিভিন্নভাবে জীবন যাপনে সাহায্য করে। সমাজের প্রতিও আমাদের অনেক দায়িত্ব আছে এবং সেই দায়িত্ব গুলোও যথাযথ পালন করা। মোট কথা সামাজিক হওয়া।

[ছয়] আমরা একটি রাষ্ট্রে বাস করি এবং রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করি। এই ক্ষেত্রেও একজন কৃতজ্ঞ নাগরিক হিসেবে সেই রাষ্ট্রের প্রতি আমাদের অনেক দায়িত্ব আছে, সেই দায়িত্ব গুলো পালন করা।

সেই সাথে, স্বামী হিসেবে স্ত্রীর প্রতি অথবা স্ত্রীর হিসেবে স্বামীর প্রতি উপযুক্ত দায়িত্ব পালন করা। অন্যান্যদের প্রতিও ঠিক একই ভাবে দায়িত্ব গুলো পালন করতে থাকা। আর এভাবেই একজন দায়িত্বশীল মানুষ হিসাবে আমরা যদি আমাদের কে প্রতিষ্ঠিত করতে পারি, তাহলে আর কিছু তেমন দরকার পরবে না। একটি সম্মানিত জীবন আমাদের জন্য অবশ্যই অপেক্ষা করবে। যেটা একটা চোরও আশা করে। অথচ এর জন্য যেটা করার দরকার সেটা করতে চায়না।

অন্য কে কি দায়িত্ব পালন করলো কিনা সেটা দেখার আগে দেখা উচিত আমি আমার সব দায়িত্ব গুলো ঠিক মতো পালন করছি কিনা। আর এটাই আলোকিত জীবন এর জন্য যথেষ্ট ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here