কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য নিয়ে জীবন বোধের লেখক-ডাক্তার রীতা ওঝা’র বিশ্লেষণ ধর্মী অসাধারণ লেখা “আর পিছু নয়”

287
ডাক্তার রীতা ওঝা’র বিশ্লেষণ ধর্মী অসাধারণ লেখা “আর পিছু নয়”

আর পিছু নয়——–
ডাক্তার রীতা ওঝা

পাথরের রাস্তা কঠিন হয়,আহত হতে হয়। তবে শক্ত হতে ও প্রেরণা জোগাতে সাহায্য করে। অন্যদিকে স্বপ্ন দেখতে সবাই ভালবাসে যদি হয় রাজ-রানীর গল্পের মতো। তবে গোলাপের যেমন কাঁটা আছে গল্পের মাঝে সেই রকমই কাঁটা না থাকলে ভালো লাগে না। শুভ কাজ,উচচ চিন্তা- ভাবনা , লক্ষ্য, স্বপ্ন ইত্যাদি সুদূরপ্রসারী মঙ্গলময় উদ্দেশ্যে নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার কথা পৃথিবীর সমস্ত পিতা মাতা ভাবেন। কিন্তু সৃষ্টির রহস্য নিয়ে ,নতুন কিছু আবিষ্কার এর নেশায়, সুন্দর ধরণী সংরক্ষণের জন্য ও চলতে থাকে একটার পর একটা সঠিক পরিকল্পনা। নতুনদের মাঝে কিভাবে বিস্তৃত করা যায় তা নিয়ে চলে কথাবার্তা।

সৃষ্টির সেরা মানুষের মধ্যে অর্ধেকই নারী। তাই বাদ দিয়ে সুপরিকল্পিত কোন কাজ এগিয়ে যাওয়া অসম্ভব ।ধরণীতে ভারসাম্য আনতে পারে সবাই মিলে।নারীরা ,পুরুষ থেকে দুটো দিক থেকে পিছিয়ে আছে।একটা হলো জন্ম থেকেই সৃষ্টি কর্তা তাদের শক্তি বেশি দিয়েছেন।কিন্তু ডিজিটাল যুগে একটা আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিচ্ছে শারিরীক শক্তি নয় প্রকৃত জ্ঞানের আলো প্রধান ।অন্যটা হলো নারীদের সন্তান ধারণের ক্ষমতা দিয়ে দুর্বল করে দিয়েছেন।প্রজনন ক্ষমতার জন্য, সন্তান লালন-পালনের জন্য জীবনের অর্ধেক সময় চলে যায়। প্রজনন ক্ষমতার সময় নারীর জন্য সুস্বাস্থ্য অত্যন্ত জরুরী। এই সময় পিছিয়ে পড়া মানেই পৃথিবীর ভারসাম্য বজায় রাখা কঠিন। তাই আর পিছু নয় ছুটতে হবে অনন্ত কাল সঠিক লক্ষ্য নিয়ে। যেসব কারণে এই বয়সে পিছিয়ে পড়ে তা হলো:-
-পুষ্টিহীনতা,
-খাওয়ার সমস্যা,

  • নিজেকে অনুপযোগী করে তৈরি,
    -অর্থনৈতিক সমস্যা,
    -অপ্রাপ্তবয়সে বিবাহ, -মাসিকের সমস্যা, -অনানঙ্খিত মা হওয়া,
    -স্বামী ও পরিবার এর সন্তান ইসু,
    -সন্তান নষ্ট করা,
    -মাতৃ মৃত্যুহার ও শিশু মৃত্যুহার এই বয়সে বেড়ে যাওয়া,
    -বিভিন্ন ভায়োলেন্স এর শিকার,
    -মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যা,
    -নেশায় আসক্ত, -আত্মাহত্যার সমস্যা ,
    -দুশ্চিন্তায় থাকা ইত্যাদি।

    একটা সুস্বাস্থ্য জাতি দিতে পারে সুন্দর সৃষ্টি। এর জন্য প্রয়োজন প্রকৃত সুশিক্ষা ও সুচিন্তিত পরিকল্পনা।তাই সব সময় হৃদয়ে আস্থা জাগাতে হবে ,জানাতে হবে প্রকৃত তথ্য, নির্দিষ্ট বাধা,তাদের ক্ষমতায়ন,নিজের পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা, মাসিকের জন্য স্বাস্থ্যবিধি, জন্মনিয়ন্ত্রন এর বিভিন্ন ব্যবস্থা ,মানসিক স্বাস্থ্যবিধি উত্তরণের উপায়, বহুবিবাহ বা জীবন সঙ্গী রহিত ইত্যাদি। পৃথিবীর সমস্ত দেশে থাকা উচিত উন্নত সেবা,প্রতিরোধের ব্যবস্থা, নিরাময়কারী সেবা,নির্দেশনা মূলক সেবা ও সঠিক বিস্তৃত প্রচার।
    সর্বোপরি গতির জন্য নির্দিষ্ট পদক্ষেপের দরকার কিন্তু প্রগতির জন্য ভালো আচরণের প্রয়োজন।সংসার সময়ের সাথে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন চলছে। সবেই নশ্বর ।ক্রোধ,মূর্খতা, অহংকার মিলে যেমন ধন,জ্ঞান, সম্পদ ও সম্পর্ক নষ্ট করে দেয় তেমন ধৈর্য্যকে বাহন করলে বিবেক সঠিক পরিকল্পনা এনে অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে যায়।
  • আর পিছু নয়
    করোনা কোন ভয়
    পরিশ্রম আনবে জয়
    জ্ঞান করবে অভয়।

    লেখকঃ –প্রভাষক ,ফিজিওলজি ও বায়োকেমিষ্ট্রী ডিপার্টমেন্ট , ঢাকা ডেন্টাল কলেজ, মিরপুর,ঢাকা
Content Protection by DMCA.com

LEAVE A REPLY